শ্মশানঘাট এলাকায় মিলল ভিজিডির ৮৫ বস্তা চাল

পাবনার ভাঙ্গুড়া উপজেলার দিলপাশার ইউনিয়নের শ্মশানঘাট এলাকায় পাওয়া গেল ভিজিডি-র ৮৫ বস্তা চাল। স্থানীয়দের মাধ্যমে খবর পেয়ে গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট, ভাঙ্গুড়া থানা পুলিশ সেখানে হাজির হয়ে পরিত্যক্ত অবস্থায় চালের বস্তা গুলি উদ্ধার করেন।

তবে ওই পরিত্যক্ত চালের বস্তাগুলোর মালিকানা কেউ দাবি করেননি। বিষয়টি নিয়ে এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

অভিযোগ উঠেছে, ইউনিয়ন পরিষদের স্টোর রুম থেকে ওই চালগুলো স্থানীয় দুই ব্যবসায়ীর কাছে বিক্রি করা হয়। তবে অভিযোগ অস্বীকার করেছেন সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন পরিষদের কর্তৃপক্ষ।

এলাকাবাসী জানান, উপজেলার দিলপাশার ইউনিয়নের মাগুড়া গ্রামের রফিজ মন্ডলের ছেলে খোকন ও হাট উধুনিয়া গ্রামের আজাহার আলীর ছেলে বাবুল আক্তার গত বৃহস্পতিবার বিকেলে ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ইউপি সদস্যদের কাছ থেকে ওই চাল কেনেন। পরে সরকারি সিলযুক্ত বস্তা পরিবর্তন করে অন্য বস্তা ব্যবহার করেন। এভাবে ওই চালের বস্তাগুলো একটি ট্রলি বোঝাই করে নিয়ে যাওয়ার পথে স্থানীয় লোকজন বাধা দেন।

উপায় না পেয়ে ট্রলির চালক চালের বস্তাগুলো শ্মশান ঘাটের কাছে রাস্তার পাশে ফেলে রেখে চলে যায়। পরে এলাকাবাসী রাতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সৈয়দ আশরাফুজ্জামানকে বিষয়টি অবগত করেন। ইউএনও তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থলে উপজেলা সহকারী কমিশনার(ভুমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. কাওছার হাবিবকে পাঠান।

এ বিষয়ে দিলপাশার ইউনিয়নের চেয়ারম্যান অশোক কুমার ঘোষ পরিষদের স্টোর থেকে চাল বিক্রির কথা অস্বীকার করেন। তিনি দৈনিক আমাদের সময়কে জানান, গত বুধবার এবং বৃহস্পতিবার সুবিধা ভোগীদের মাঝে ভিজিডি কার্ডের চাল বিতরণ করা হয়। উপকার ভোগীরাই এই চালগুলো বিক্রি করে থাকতে পারে।

এ ঘটনার বিষয়ে ভাঙ্গুড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুহম্মদ আনোয়ার হোসেন বলেন, ‘এসআই নাজমুল সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে রাত ৯টায় ঘটনাস্থল পৌঁছেন এবং নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নির্দেশে ৮৫ বস্তা চাল উদ্ধার করেছে।’

সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. কাওছার হাবীব বলেন, ‘কেউ চালের মালিকানা দাবি না করায় বস্তাগুলো উদ্ধার করে রাতেই ওই ইউনিয়ন পরিষদের একটি কক্ষে সিলগালা করে রাখার জন্য পুলিশকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।’

ইউএনও সৈয়দ আশরাফুজ্জামান জানান, তদন্ত করে প্রমাণ মিললে দোষীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।


আরও পড়ুন