দেশের খবর - April 1, 2021

তালতলীতে দুলাভাইয়ের সঙ্গে ঘুরতে গিয়ে ধর্ষণের শিকার শ্যালিকা

বরগুনার তালতলীতে দুলাভাইয়ের সঙ্গে ঘুরতে এসে সংঘবদ্ধ গণধর্ষনের শিকার হয়েছেন পার্শ্ববর্তী কলাপাড়া উপজেলার ইসলামপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণীর এক স্কুল ছাত্রী।

বুধবার (৩১ মার্চ) বিকেলে উপজেলার সোনাকাটার টেংরাগিরি-ইকোপার্কের বনের ভিতরে এ ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় ৪জনকে আসামী করে ভুক্তভোগী ওই নারী বাদী হয়ে থানায় মামলা দায়ের করেন। আসামিরা হলেন, সোহাগ (২৫), হাসান (২৮),  মিজানুর (২৪) ও জাহিদুল (২৭)।

মামলার বিবরণে জানা যায়, বুধবার বিকেলে আমতলী খলিয়ান এলাকা থেকে তালতলীর সোনাকাটা টেংরাগিরি-ইকোপার্কে ঘুরতে আসেন ভুক্তভোগী নারী ও তার দুলাভাই। পরে তারা ভাড়ায় চালিত মোটরসাইকেল নিয়ে টেংরাগিরি ইকোপার্কে যান। প্রবেশদ্বারের কিছুটা ভেতরে হরিণের বেষ্টনীর কাছাকাছি গেলে দুলাভাই একটি দোকান থেকে পানি নিতে যান দোকানে। এসময় ওই চার বখাটে এসে মোটরসাইকেল চালককে বলে- ‘এখানে তোমরা প্রেম করতে এসেছো। এটা প্রেমের জায়গা নয়’। এরপর চালককে গাছের সঙ্গে বেঁধে মোবাইল ও মোটরসাইকেলের চাবি ছিনিয়ে নেয়। ভুক্তভোগীকে বনের ভেতরে নিয়ে সোহাগ ও হাসান ধর্ষণ করেন। আর মিজানুর ও জাহিদুল পাহারা দেন। পরে স্থানীয়রা ভুক্তভোগীকে উদ্ধার করে পুলিশকে খবর দেয়। পুলিশ ওই নারীকে উদ্ধার করে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

ভুক্তভোগীর দুলাভাই বলেন, শ্যালিকাকে নিয়ে সোনাকাটা-টেংরাগিরি ইকোপার্কে ঘুরতে আসি। পরে এক ফাঁকে পানি নিতে যাই। এ সুযোগে স্থানীয় চারজন বখাটে মোটরসাইকেল চালককে মারধর করে মোবাইল ছিনতাই করে। এরপর শ্যালিকাকে দুইজনে পালাক্রমে ধর্ষণ করে।

তালতলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি-তদন্ত) ফরিদুল ইসলাম বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়। ভুক্তভোগীকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসা হয়। সে বাদী হয়ে চারজন আসামির বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। তাদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।


আরও পড়ুন