মোবাইলের বাটন চাপলেই হাজির হবে পুলিশ

হঠাৎ করেই বিপদ! দুশ্চিন্তার কারণ নেই। হাতের মোবাইলটির বাটন টিপে কল দিলেই বাড়িতে হাজির হবে পুলিশ। এমনকি এখন আর ছোটখাটো অভিযোগ জানাতে কিংবা পুলিশের জরুরি সেবা পেতেও থানায় ছুটতে হবে না। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাসহ যে কোনো সেবা পেতে যোগাযোগ করা যাবে বাড়ির পাশেই বিট কর্মকর্তাদের কাছে। আর বিট কর্মকর্তাকে মোবাইল ফোনে তাৎক্ষণিক যে কোনো ঘটনা জানানো যাবে ঘরে বসেই।

‘বিট পুলিশিং বাড়ি বাড়ি, নিরাপদ সমাজ গড়ি’-এ স্লোগানে কিশোরগঞ্জে শুরু হয়েছে জেলা পুলিশের বিট পুলিশিং কার্যক্রম।

বৃহস্পতিবার (১৭ জুন) দুপুরে শহরের শোলাকিয়া বিটে বিট অফিসার ও থানার ওসির মোবাইল নম্বর-সম্বলিত স্টিকার মানুষের বাড়ি বাড়ি লাগিয়ে দেয়ার মাধ্যমে জেলায় এ কার্যক্রম উদ্বোধন করেন পুলিশ সুপার মাশরুকুর রহমান খালেদ।

পুলিশ সুপার বলেন, এক সময় সাধারণ মানুষ নানা কারণে সেবা নিতে সহজে পুলিশের কাছে আসতে চাইতো না। কিন্তু এখন সময় পাল্টেছে। পুলিশের সহায়তা এখন মানুষের দোড়গোড়ায় পৌঁছে গেছে। শুধু পুলিশই মানুষকে সহায়তা করছেনা, মানুষও পুলিশের কাজে বিভিন্নভাবে সহযোগিতা করছে।

পুলিশ সুপার আরও বলেন, বিট পুলিশের কার্যক্রমের ফলে প্রাথমিক অবস্থায় মানুষকে থানায় যেতে হচ্ছে না। বাড়িতে থেকেই পুলিশের সেবা পাচ্ছেন। এর ফলে আইনের প্রতি মানুষের শ্রদ্ধাবোধ যেমন বেড়েছে, তেমনি অপরাধ প্রবণতাও কমে আসছে।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, ঘরের দরজায় সাঁটানো বিট পুলিশিং স্টিকারে থাকবে সংশ্লিষ্ট বিট কর্মকর্তা, থানার ওসি ও ডিউডি অফিসারের মোবাইল নম্বর। যে কোনো প্রয়োজনে তাদের সহযোগিতা নিতে পারবে এলাকাবাসী। প্রাথমিক অবস্থায় সদর উপজেলায় ৫০ হাজার স্টিকার দিয়ে এ কার্যক্রম উদ্বোধন করা হয়েছে।

কিশোরগঞ্জের ১৩টি উপজেলায় ১০৮টি ইউনিয়ন ও ৮টি পৌরসভায় বিট পুলিশের মোট ১১৪টি বিট স্থাপন করা হয়েছে। প্রতিটি বিটে একজন করে উপ-পরিদর্শক দায়িত্ব পালন করবেন।

 


আরও পড়ুন