যানজট কমাতে গাজীপুর-ঢাকা বিশেষ ট্রেন চালু

সড়ক পথে দীর্ঘ যানজটের দুর্ভোগ কমাতে গাজীপুর-ঢাকা-গাজীপুরে বিশেষ ট্রেন চলাচল শুরু হয়েছে। রোববার সকাল ৭টা ১৫ মিনিটে জয়দেবপুর জংশন থেকে কমলাপুর উদ্দেশে ছেড়ে যায় তুরাগ এক্সপ্রেস। এরপর সকাল ৮টায় ছেড়ে যায় টাঙ্গাইল কমিউটার।

ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে গাজীপুরের চান্দনা চৌরাস্তা থেকে উত্তরা পর্যন্ত দীর্ঘ যানজটে মানুষের প্রচুর সময় নষ্ট হচ্ছে। যানজটে মানুষের দুর্ভোগ কমাতে বিশেষ ট্রেন চালু হওয়ায় স্বস্তিতে নগরবাসী।

জনদুর্ভোগের কথা বিবেচনা করে আজ থেকে ঢাকা-গাজীপুর-ঢাকা রেলপথে বিশেষ ট্রেন চালুর কথা জানিয়েছিলেন গাজীপুর-২ আসনের সাংসদ এবং যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল।

রেলওয়ের উপপরিচালক রেজাউল হক স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, মহাসড়কে যাত্রীদের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। যাত্রীচাহিদা বিবেচনায় দুর্ভোগ লাঘবের জন্য তুরাগ এক্সপ্রেস ১, ২, ৩ ও ৪, টাঙ্গাইল কমিউটার ১ ও ২ ট্রেন ২০ জুন থেকে চলবে। মোট আসনের ৫০ শতাংশ টিকিট বিক্রি করে ট্রেন পরিচালনা করার জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

রাজধানী ঢাকার সঙ্গে গাজীপুর হয়ে দেশের ৩৭টি জেলার মানুষ চলাচল করে। ঢাকার সঙ্গে গাজীপুরের যোগাযোগব্যবস্থা সহজতর করতে ২০১২ সালে গাজীপুরের চান্দনা চৌরাস্তা থেকে হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর পর্যন্ত দেশে প্রথমবারের মতো বাস র‌্যাপিড ট্রানজিট (বিআরটি) প্রকল্পের কাজ শুরু হয়। সঠিক সময়ে প্রকল্পটির কাজ শেষ করতে না পারা, মহাসড়কে খানাখন্দ, সামান্য বৃষ্টিতে জলাবদ্ধতায় সৃষ্ট যানজটে ঘণ্টার পর ঘণ্টা যাত্রীদের অপেক্ষা করতে হয়। এতে দুর্ভোগের মাত্রা বেড়েছে সীমাহীন। এ নিয়ে ওই মহাসড়কে চলাচলকারী যাত্রীদের ক্ষোভ দীর্ঘদিনের। এ বিষয়ে উদ্যোগ নেন প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল।

জয়দেবপুর জংশনের স্টেশনমাস্টার মো. রেজাউল ইসলাম বলেন, ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে আজ সকালে তুরাগ এক্সপ্রেস ও টাঙ্গাইল কমিউটার ছেড়ে গেছে। বিকালে কালিয়াকৈর কমিউটার চলবে। এছাড়া সাধারণ দিনে যেসব ট্রেন চলাচল করত, সেগুলো চলাচল অব্যাহত রয়েছে।


আরও পড়ুন