কিশোরগঞ্জে মাঠে নয় ৬ হাজার ৬৩৮ মসজিদেই হবে জামাত

কিশোরগঞ্জে ঈদগাহ মাঠে নয় জেলার ৬ হাজার ৬৩৮ টি মসজিদেই পবিত্র ঈদুল আজহার নামাজ অনুষ্ঠিত হবে। সকাল সা‌ড়ে ৭টা, সোয়া ৮টা ও ৯টায় মহাবীর ঈসা খানের অধস্তন পুরুষ জিল কদর খাঁর স্মৃতি বিজড়িত জেলা শহ‌রের ঐ‌তিহা‌সিক পাগলা মসজি‌দে ঈ‌দের তিন‌টি জামাত অনু‌ষ্ঠিত হবে। অন্যদিকে জেলা শহ‌রের ঐতিহাসিক শহীদী মস‌জিদসহ জেলার সকল মসজিদে দুই থে‌কে তিন‌টি ক‌রে ঈদ জামাত অনু‌ষ্ঠিত হ‌বে।

কিশোরগঞ্জ ইসলামি ফাউন্ডেশনের উপ-পরিচালক মো. মহসিন খান এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি আরও জানিয়েছেন, মসজিদে জায়গা সংকুলান না হলে স্থানীয়ভাবে যদি মাঠ পরিচালনা কমিটি স্বাস্থ্যবিধি ও সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে নামাজ আদায় করতে চায় তাহলে মাঠ কমিটির ব্যবস্থাপনায় করতে পারবে। প্রত্যেক উপজেলার ইউএনওগণ স্থানীয়ভাবে সেটির সিদ্ধান্ত দেবেন।

অপর দিকে ক‌রোনা ভাইরাস সংক্রমণের প‌রি‌স্থি‌তি‌ ভয়াবহ হওয়ার কারনে ঐ‌তিহা‌সিক শোলাকিয়া ঈদগাহ কমিটির সভায় এবারও শোলা‌কিয়া মা‌ঠে ঈ‌দের জামাত হ‌বেনা ব‌লে সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত করা হয়েছে।

কি‌শোরগ‌ঞ্জের জেলা প্রশাসক ও শোলাকিয়া ঈদগাহ মাঠ পরিচঅলনা কমিটির সভাপতি মোহাম্মদ শামীম আলম জানান, ঈদের নামাজে শোলাকিয়া ঈদগাঁহে লাখো মুসল্লির সমাগম হয়। তাই করোনা ভাইরাস সংক্রমণ নিরাপত্তার কথা বিবেচনায় এ জামাত মা‌ঠে জামাত না করার সিদ্ধান্ত নেয় ঈদগাহ ক‌মি‌টি।

তিনি আরও জানান, মসজিদেও ঈদুল আজহার জামাত বড় পরিসরে হবে না। শহরের বিভিন্ন মসজিদে সামাজিক দূরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি বজায় রেখে একাধিক জামাত অনুষ্ঠিত হবে। এছাড়াও বহুতল আবাসিক ভবনের ছাদে যেন ভবনের সবাই মিলে জামাত পড়েন- সে বিষয়েও আমরা উদ্বুদ্ধ করছি।

কিশোরগঞ্জ শোলাকিয়া ঈদগাহ কমিটির সদস্য সচিব সদর উপজেলার নির্বাহী অফিসার মোঃা আব্দুল কাদির মিয়া বলেন, ঈদুল আজহার জামাত অনুষ্ঠিত হচ্ছে না শোলাকিয়ায়। সদর উপজেলার কোথাও মাঠে জামাত হবে না। অন্যান্য উপজেলায় স্থানীয়ভাবে সিদ্ধান্ত নেবে।


আরও পড়ুন