‘সিলেট-৩ আসনের উপনির্বাচন পেছানোর সুযোগ নেই’

সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতার ফলে সিলেট-৩ আসনের উপনির্বাচন পেছানোর সুযোগ নেই বলে জানিয়েছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নুরুল হুদা। আজ শনিবার সকালে উপনির্বাচন উপলক্ষে আইনশৃঙ্খলা বিষয়ক সভায় এসব কথা বলেন তিনি।

সিইসি বলেন, আগামী ২৮ জুলাই অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া সিলেট-৩ আসনের উপনির্বাচনের সব কার্যক্রম বিধিনিষেধ বহির্ভূত থাকবে ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে ভোটগ্রহণে নির্বাচন কমিশন ও প্রশাসন কাজ করছে।

তিনি আরও বলেন, নির্বাচনে ইভিএমে ভোটগ্রহণ করা হবে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে অবাধ, নিরপেক্ষ ও সুষ্ঠু ভোটগ্রহণ নিশ্চিতে কঠোর অবস্থানে থাকবে প্রশাসন। করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বৃদ্ধি পাওয়ায় সবাইকে মাস্ক পরে ও নিরাপদ দূরত্ব মেনে ভোটকেন্দ্রে আসার আহ্বান জানান তিনি।

আইনশৃঙ্খলা বিষয়ক সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন- নির্বাচন কমিশনার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল শাহাদাত হোসেন চৌধুরী (অব.), সিলেটের জেলা প্রশাসক কাজী এমদাদুল ইসলামসহ অন্যান্য প্রশাসনিক কর্মকর্তারা।

এসময় নির্বাচন কমিশনার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল শাহাদাত হোসেন চৌধুরী (অব.) বলেন, ‘সাংবিধানিক দায়িত্ব পালন করতে সবকিছুই করছে ইসি, এ নিয়ে চিন্তার কোনো কারণ নেই।’

উল্লেখ্য, গত ১১ মার্চ আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী কয়েস করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেলে সিলেট-৩ আসন শূন্য হয়।

২৮ জুলাই এ উপ-নির্বাচনে ইভিএমের মাধ্যমে তিন লাখ ৩০ হাজার ভোটার ১৪৯টি কেন্দ্রে ভোট দেবেন। নির্বাচনে আওয়ামী লীগের হাবিবুর রহমান হাবিব, জাতীয় পার্টির আতিকুর রহমান আতিক, বিএনপির বিদ্রোহী (স্বতন্ত্র) শফি আহমদ চৌধুরী ও বাংলাদেশ কংগ্রেসের জুনায়েদ মোহাম্মদ মিয়া প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।


আরও পড়ুন