তামিমকে নিয়ে আপাতত ভাবতে নারাজ ডমিঙ্গো!

ইনজুরির কারণে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজে না থাকলেও আলোচনায় তামিম ইকবাল। ২০ ওভারের ফরম্যাটে সবশেষ ম্যাচ খেলেছেন প্রায় দেড় বছর আগে। তবে আসন্ন বিশ্বকাপ ভাবনায় বেশ ভালোভাবে আছেন তিনি। বোর্ডের তরফ থেকে জানানো হয়েছে ফিট থাকলে বিশ্বকাপের দলে নাম থাকবে তামিমের। বাঁহাতি এই ওপেনারকে নিয়ে টিম ম্যানেজমেন্টের ভাবনা কী?

টাইগারদের হেড কোচ রাসেল ডমিঙ্গো আজ (সোমবার) ভার্চুয়াল প্রেস কনফারেন্সে এক প্রশ্নের জবাবে তামিম প্রসঙ্গে জানালেন, তাকে নিয়ে এখনো ভাবেনি টিম ম্যানেজমেট। ডমিঙ্গো বলছিলেন, ‘যারা এখন খেলছে তাদের নিয়ে প্রশ্ন পেলে খুশি হতাম। এখন দলে যে ১৭-১৮ জন খেলোয়াড় আছে তাদের দিকেই আমার মনোযোগ। তামিম ফিট হলে সেও আসবে। আমি এটা নিয়ে খুব বেশি ভাবিনি। এখন যে খেলোয়াড়রা আছে তাদের নিয়েই আমার পূর্ণ মনোযোগ।’

তামিম না থাকায় কিউইদের বিপক্ষে ওপেনিংয়ে ব্যাট হাতে দেখা যেতে পারে নাঈম শেখকে। তবে ব্যাট হাতে ভালো ছন্দে নেই এই তরুণ। সম্প্রতি অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ৫ ম্যাচে করেছেন মোটে ৯১ রান। উইকেটে থিতু হয়েও ইনিংস বড় করতে না পারার আক্ষেপে পুড়তে হয়েছে। তবে তার টি-টোয়েন্টি পরিসংখ্যান নেহায়েত মন্দ নয়। ১৭ টি-টোয়েন্টিতে ২৯.০৬ গড়ে দুই ফিফটিতে রান ৪৬৫, স্ট্রাইক রেট প্রায় ১১২।

নাঈমে রোমাঞ্চিত ডমিঙ্গো বলছিলেন, ‘বাংলাদেশের জন্য দারুণ এক খেলোয়াড় হতে যাচ্ছে সে। সে ফিট। তার সামর্থ্য আছে। ভালো কিছু ইনিংস খেলেছে। এখনও স্ট্রাইক রোটেট করার ছন্দ খুঁজছে। আমি তার উন্নতিতে অনেক খুশি। ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি সে দলের জন্য দারুণ কিছু হতে যাচ্ছে। তাকে নিয়ে আমি রোমাঞ্চিত।’

এদিকে ঘরোয়া ক্রিকেটে ব্যাট হাতে ধারাবাহিকভাবে রান পেলেও জাতীয় দলে এসে সুবিধা করতে পারছেন না শেখ মেহেদী হাসান। ৪৫ ইনিংসে প্রায় সাড়ে আটশ-র মতো রান। ফিফটি আছে ৫টি। স্ট্রাইক রেটটাও ১৩০ ছুঁইছুঁই। অথচ আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ১৪টি টি-টোয়েন্টি খেলে নামের পাশে মোটে ১১৯ রান জমা করতে পেরেছেন মেহেদী। ১৩ গড়ে ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ ২৩ রান। স্ট্রাইক রেটও টি-টোয়েন্টি সুলভ নয়, ১০০ এর নিচে।

মেহেদী প্রসঙ্গে ডমিঙ্গো বলেন, ‘সে আমাদের জন্য ফ্রি প্লেয়ার। তাকে চাইলে টপ অর্ডারে নিতে পারছি। ১২ বলে ২০ রান চাইলে তাকে ডাকতে পারছি। গুরুত্বপূর্ণ কিছু ইনিংস খেলেছে, ক্যামিও খেলেছে। ঘরোয়া টি-টোয়েন্টিতেও ভালো করেছে। তবে ঘরোয়া ও আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের মধ্যে ফারাকটা বুঝতে হবে। আমি তার ব্যাটিং নিয়ে উদ্বিগ্ন নই। আগ্রাসী ব্যাটিংয়ের প্রয়োজন মনে করলে আমরা তাকে ব্যাটিং অর্ডারের ওপরের দিকে ব্যবহার করব।’


আরও পড়ুন