আবারও ৩২ বাংলাদেশি ফেরত পাঠাল মাল্টা

সজীব আহমেদ, (মাল্টা) ইউরোপ প্রতিনিধি : ইউরোপীয় ইউনিয়নের অন্তর্ভুক্ত মাল্টা ডিন্টেশন সেন্টার থেকে আবারও ৩২ জন বাংলাদেশিকে ফেরত পাঠানোর হয়েছে। ইতোমধ্যে খবরটি জানাজানি হলে প্রবাসীদের মাঝে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।

জানা গেছে, এসব বাংলাদেশি অবৈধভাবে মাল্টা প্রবেশ করেছেন। এর আগে বিশেষ একটি বিমানে গত বছর ৪৪ বাংলাদেশিকে ফেরত পাঠানো হয়েছিল। এসব বাংলাদেশীদে ব্যাপারে গ্রিসে এথেন্সে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাস পাঠাতে আউট পাস দিয়ে মাল্টা সরকারকে সহায়তা করতেছে। এরা রাজনৈতিক ও মানবিক আশ্রয় চেয়ে মাল্টা সরকারের কাছে আবেদন করেছিলেন। তা প্রত্যাখ্যাত হয়েছে।

আটক থাকা বাংলাদেশিরা জানিয়েছে গ্রিসে বাংলাদেশ দূতাবাসের কাউন্সিলর মো. খালেদ নেতৃত্ব একটি প্রতিনিধি দল।

ডিন্টেশন সেন্টারে আমাদের সাথে দেখা করে তখন তারা আমাদেরকে কোনো সহযোগিতা না করে, বরং মাল্টা সরকারের পক্ষ কথা বলে,তাছাড়া অনেকের সাথে খারাপ ব্যবহারও করেছে।

তারা আমাদের সাথে দেখা করার এক সাপ্তাহ আগেও আমাদের সাথে বন্ধুরা মুক্তি পেয়েছে। এখন তারা আসার কারণে আমাদের মুক্তি বন্ধ হয়েগেছে।

জানি না কত টাকা বা কিসের বিনিময়ে দীর্ঘ ২বছর যাবর্ত বন্ধি থাকা আমাদেরকে আউড পাস দিয়ে বাংলাদেশে নেওয়া হচ্ছে।

তারা আরো বলেন এতদিন এই বিষয়টি কেউ জানতো না এখন সবাই জেনেছে ইতিমধ্যে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও সংগঠনের পক্ষ থেকে আইনী সহযোগিতা করতেছে।

জীবনের ঝুঁকি নিয়ে দালালের মাধ্যমে মাল্টা এসেছিলেন সেই সব বিবরণ দিয়েছে আটকৃত বাংলাদেশিরা,আফ্রিকার দেশ লিবিয়া হয়ে তারা সেখানে পৌঁছেছেন।

বাংলাদেশ থেকে প্রথমে তাদের দুবাই, তার পর লিবিয়া নেওয়া হয়। এরপর সাগরপথে মাল্টায় এসেছেন। অনেকেই নৌকাডুবে মারাও গেছেন।

লিবিয়ায় থাকাকালে টাকার দাবিতে তাদের ওপর দফায় দফায় শারীরিক নির্যাতন ও প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে দেশে পরিবারের লোকদের কাছে টাকা দেওয়ার জন্য বলা হইতো।

এভাবে অনেকের পরিবার এখন নিঃস্ব, এখন তাদের অনেকে দেশে ফিরতেও চান না। কারণ তারা ফেরত এলে তাদের পরিবারগুলো আর্থিক সংকটে পড়বে।

তাছাড়া তারা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সহযোগিতা কামনা করছে।


আরও পড়ুন