জেল থেকে বেরিয়ে মাকে কুপিয়ে হত্যা

চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জে দা দিয়ে কুপিয়ে মাকে খুন করার ঘটনা ঘটেছে। গতকাল মঙ্গলবার দিবাগত রাত ৪টার দিকে পশ্চিম বড়ালী দেওয়ান বাড়িতে মা মনোয়ারা বেগমকে (৬৫) তার ছেলে মমিন দেওয়ান (৪২) দা দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করে পালিয়ে যান। পরে মিরপুর এলাকার বাসিন্দারা তাকে আটক করে পুলিশের কাছে তুলে দেয়।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্র জানায়, মা ও ছেলে একই ঘরে বসবাস করতেন। ঘটনার রাতে হঠাৎ মাকে দা দিয়ে কুপিয়ে খুন করে পালিয়ে যান মমিন।

নিহতের ভাই রুহুল আমিন ও একই বাড়ির আ. রহিম জানান, মমিন দীর্ঘ দিন জেলে ছিলেন। সম্প্রতি দু‘মাস আগে জেল থেকে জামিনে আসেন। তিনি ইতিপূর্বে রুপবান নামে এক নারীকে ছুরি দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করার দায়ে বেশ কয়েক বছর জেলে ছিলেন। গতকাল রাতে মাকে কুপিয়ে রাতেই তিনি পালিয়ে যান।

অভিযুক্ত মমিন বলেন, ‘আমার মাকে দা দিয়ে ১০-১২টি কোপ দিয়ে হত্যা করি। এ ছাড়া আমাকে মিথ্যা মামলায় জড়ানোর কারণে ১৮ বছর আগে এক মহিলাকে তিন দিনের আল্টিমেটাম দিয়ে ছোরা তৈরি করে জবাই করে হত্যা করি।’

এদিকে নিহত মনোয়ারা বেগমের মৃত্যুর ঘটনায় মমিনের মামা রুহুল আমিন বাদী হয়ে ফরিদগঞ্জ থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

এ বিষয়ে ফরিদগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শহিদ হোসেন জানান, সংবাদ পেয়ে লাশ সুরতহাল করে মর্গে পাঠানো হয়েছে। পুলিশের সর্তক দৃষ্টির ফলে স্থানীয় মিরপুর এলাকা থেকে অভিযুক্ত মমিনকে আটক করা সম্ভব হয়েছে। তবে মমিনের বিষয়ে এলাকাবাসী মানসিক সমস্যা রয়েছে বলে জানিয়েছে। তা ছাড়া মমিনের কথায়ও অসংলগ্নতা বোঝা যাচ্ছে বলেও জানান পুলিশের এই কর্মকর্তা।


আরও পড়ুন