টিউলিপ নাম হওয়ায় কম্পিউটার কেনেননি খালেদা জিয়া : প্রধানমন্ত্রী

খালেদা জিয়া প্রধানমন্ত্রী থাকাকালীন শেখ রেহানার মেয়ের নামে নাম হওয়ায় নেদারল্যান্ডসের টিউলিপ কোম্পানি থেকে ১০ হাজার কম্পিউটার কেনেননি বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বৃহস্পতিবার সকালে নবনির্মিত জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি কমপ্লেক্সের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে এসব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী।

শেখ হাসিনা বলেন, ‘নেদারল্যান্ডসের একটি ফুলের নাম টিউলিপ। কিন্তু কেউ তদানীন্তন প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়াকে বোঝায়- শেখ রেহেনার মেয়ের নাম টিউলিপ। তাই সেখান থেকে কম্পিউটার নেয়নি বিএনপি।’

প্রধানমন্ত্রী আরও জানান, নেদারল্যান্ডসের সেই কোম্পানি পরে বাংলাদেশের বিরুদ্ধে মামলা করে। এ মামলা পরিচালনা করতে আইনজীবী নিয়োগ করতে হয়। এতে অনেক খরচ হয়। বাংলাদেশকে প্রায় ৬০ কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ দিতে হয়। ১০ হাজার কম্পিউটার তো গেলই, উল্টো আরও ৬০ কোটি টাকা দিতে হলো দেশের সরকার প্রধানের সিদ্ধান্তে। শেখ হাসিনা আরও বলেন, এ ধরনের সরকারপ্রধান থাকলে দেশের উন্নতি কীভাবে হবে, আপনারাই ভালো জানেন।

গবেষণার ওপর গুরুত্ব দেওয়া প্রসঙ্গে শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমাদের দেশীয় সম্পদ যা আছে, অনেক অমূল্য সম্পদ রয়ে গেছে যা আমরা এখনো ব্যবহার করতে পারিনি বা ধরা-ছোঁয়ার বাইরে। সেগুলোও আমাদের খুঁজে বের করতে হবে। তারপর গবেষণা করে সেগুলোও যাতে দেশের মানুষের কাজে লাগানো যায় সে বিষয়ে আমাদের বিশেষভাবে দৃষ্টি দিতে হবে।’

সরকারপ্রধান আরও বলেন, ‘স্বাস্থ্য, খাদ্য উৎপাদন, ইঞ্জিনিয়ারিং বা অবকাঠামো উন্নয়নের প্রতিটি ক্ষেত্রেই গবেষণা প্রয়োজন। আসলে গবেষণা ছাড়া উৎকর্ষ সাধন হয় না। আর টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করতে গেলে গবেষণা একান্তভাবে দরকার। সেজন্য গবেষণার দিকে নজর দেওয়া দরকার। আর সারা বিশ্বে প্রযুক্তি ব্যবহারের যে প্রভাব বেড়েছে সেই প্রযুক্তির সাথে তাল মিলিয়ে চলতে গেলে আমাদেরকেও গবেষণায় সবসময় নজর দিতে হবে।’

এসময় করোনার নতুন ধরন ওমিক্রন প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘একটা জিনিস সবাই একটু লক্ষ্য রাখবেন, নতুন আরেকটা ভ্যারিয়েন্ট দেখা দিয়েছে। এই ভ্যারিয়েন্ট দ্রুত ছড়াচ্ছে, একসঙ্গে পুরো পরিবার আক্রান্ত হচ্ছে।’

সবাইকে টিকা নেওয়ার আহ্বান জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, ‘যারা টিকা নেননি, দ্রুত তারা টিকা নিয়ে নেবেন। স্কুলের ছাত্রছাত্রীদেরও টিকা দেওয়া শুরু হয়েছে। টিকা নিলে অন্ততপক্ষে জীবনে বেঁচে থাকা যায়।’

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রী স্থপতি ইয়াফেস ওসমান অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন। জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘরের মহাপরিচালক মুহাম্মাদ মুনীর চৌধুরী স্বাগত বক্তৃতা করেন। অনুষ্ঠানে নবনির্মিত ‘জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি কমপ্লেক্স’এর ওপর একটি ভিডিওচিত্র প্রদর্শিত হয়।


আরও পড়ুন