ভৈরব জায়গা নিয়ে দুপক্ষের সংঘর্ষ

সোহানুর রহমান (সোহান), ভৈরব (কিশোরগঞ্জ) প্রতিনিধি :  ভৈরব পৌর এলাকার ভৈরবপুর উত্তর পাড়া ছাবর আলী হাজীর বাড়ি এবং দক্ষিণ পাড়া কষাই হাটির লোকজনের সংঘর্ষে ২০ জন আহত হয়েছে।

এলাকাবাসী জানায়, জায়গা নিয়ে বাদল মিয়া, মোবারক এবং মামুন ও মানিক বাহিনী এর পক্ষের লোকজনের মধ্যে বুধবার সকালে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া হয়। এদিন বিকাল ৪.০০ ঘটিকায় দিকে উভয় পক্ষের লোকজন দেশীয় অস্ত্র শস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষ শুরু করে। এতে সাংবাদিক ও মহিলা সহ ২০ জন আহত হয়। এসময় কে বা কাহারা দুই সহোদর আক্তার ও মোক্তার এর একটি ভাঙ্গারীর দোকানে আগুন দেয়। খবর পেয়ে ভৈরব ফায়ার সার্ভিসের দুই ইউনিট প্রায় এক ঘন্টা চেষ্টা করে আগুন নিয়ন্ত্রনে নিয়ে আসে।

ভৈরব উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম সেন্টু, পৌর আওয়ামীলীগের মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক, সাংবাদিক এম.আর.সোহেল, উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক খলিলুর রহমান, ভৈরব উপজেলা বি.এন.পির আহব্বায়ক মোঃ রফিকুল ইসলাম, ৮ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি মোঃ আলাল মিয়া, ৮নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর হাবিবুল্লাহ নিয়াজ প্রাথমিক ভাবে ঘটনাস্থলে পৌছে উভয় পক্ষের ঝগড়া বিবাদ মিমাংসা করার চেষ্টা করে। পরে ভৈরব থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি আয়ত্বে আনে।

স্থানীয় এলাকার বাসিন্দা সময় টিভির স্টাফ রিপোর্টার ফজলুর রহমান (৬২) এবং জমনি রবি দাস (৪৮) সহ বশির (৩৩), পিয়াস (৩০), সজীব (৩৮), সিয়াম (১৬), নাসির (৩৫), আল-মামুন ও হুমায়ুন কে ভৈরব উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এ ভর্তি করে কর্তব্যরত চিকিৎসক দেবারতীদাস জানান গুরুতর আহত সিয়াম কে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় প্রেরণ করা হয়েছে। অন্য আহতদের বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হয়।

এ বিষয়ে ভৈরব থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ গোলাম মোস্তফা বলেন, এলাকার পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে রয়েছে এবং যে আর কোন অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটে সেজন্য পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।


আরও পড়ুন