কিশোরগঞ্জে গৃহহীনদের গৃহ নির্মাণ কাজ পরিদর্শন

কিশোরগঞ্জের বিভিন্ন উপজেলার ভূমি ও গৃহহীন পরিবারের জন্য বরাদ্ধকৃত গৃহ নির্মাণ কাজ সরেজমিনে পরিদর্শন করেছেন প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের পরিচালক-৪ মিজ গুলশান আরা।

রবিবার (২৩ জানুয়ারি) বিকেলে কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলার মডেল মহিনন্দ ইউনিয়নের কাশোরারচর গ্রামে গৃহহীনদের জন্য বরাদ্ধকৃত স্থান পরিদর্শন করেন তিনি।

আশ্রয়ণ -২ প্রকল্পের আওতায় ৩য় পর্যায়ের মহিনন্দ আশ্রয়ণ প্রকল্পে নির্মাণাধীন গৃহের কাজের অগ্রগতি পরিদর্শনকালে উপস্থিত ছিলেন সদর উপজেলা চেয়ারম্যান মামুন আল মাসুদ খান, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট ফারজানা খানম, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ আলী সিদ্দিকী, ভাইস চেয়ারম্যান আ. সাত্তার, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ডাঃ মাছুমা আক্তার, মহিনন্দ ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ লিয়াকত আলী, ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি মোঃ মনসুর আলীসহ স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

সদর উপজেলার নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ আলী সিদ্দিকী জানান, অদ্য পরিদর্শনকালে গৃহ নির্মাণ কাজের বিভিন্ন বিষয়ে সংশ্লিষ্ট সকলকে তিনি গুরুত্বপূর্ণ দিক নির্দেশনা প্রদান করেন। তিনি আরও জানান, মহিনন্দে ৩২টি পরিবারে গৃহহীনদেরকে ঘর নির্মাণ করে দেওয়া হবে। আপাতত ১৪ পরিবারের জন্য ঘর নির্মাণের কার্যক্রম বাস্তবায়নাধীন রয়েছে।

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের পরিচালক-৪ মিজ গুলশান বলেন, ‘মুজিববর্ষে কেউ গৃহহীন ও ভূমিহীন থাকবে না’- মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এই মহতী স্বপ্ন বাস্তবায়নের লক্ষ্যে আশ্রয়ণ প্রকল্পের অধীনে জমি ও ঘর দেশের বিভিন্ন ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবার। “মুজিববর্ষে একটি মানুষও গৃহহীন থাকবে না”- এটি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর শুধু একটি ঘোষণা নয়, এটি বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য কন্যার একটি লালিত স্বপ্ন।

এছাড়াও কিশোরগঞ্জের বিভিন্ন উপজেলার ভূমি ও গৃহহীন পরিবারের জন্য বরাদ্ধকৃত গৃহ নির্মাণ কাজ সরেজমিনে পরিদর্শন করেন তিনি।

আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পের আওতায় সারাদেশের ন্যায় কিশোরগঞ্জ জেলার ১৩টি উপজেলায় সরকারি খাস জমিতে ভূমিহীন ও গৃহহীন মানুষের জন্য গৃহ নির্মাণ করা হচ্ছে। আশ্রয়ণ -২ প্রকল্পের আওতায় জেলায় ইতোমধ্যে ১২৪৭ টি ঘর নির্মাণ করা হয়েছে। বর্তমানে ৩য় পর্যায়ে ৩০৯টি একক ঘরের নির্মাণকাজ চলমান রয়েছে যা আগামী ২০ মার্চ, ২০২২ খ্রি. তারিখের মধ্যে সম্পন্ন করার লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে বলে জানা গেছে।


আরও পড়ুন