মিঠামইনে নিখোঁজ ব্যবসায়ীর লাশ উদ্ধার

কিশোরগঞ্জে মিঠামইনে মাছ ধরতে গিয়ে নিখোঁজ হওয়ার ৩৬ ঘন্টা পর ব্যবসায়ী হামিদুল (৪৭) এর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। সোমবার (২ মে) সন্ধ্যা ৬টার দিকে উপজেলার ঢাকী ইউনিয়নের চারিগ্রাম ফেরিঘাট থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়।

এর আগে রোববার (১ মে) দুপুরে জালসহ নদী পার হতে গিয়ে পানিতে তলিয়ে গিয়ে নিখোঁজ হয় হামিদুল। পরে ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরিদল উদ্ধার তৎপরতা চালিয়ে ওইদিন তার কোন সন্ধান পায়নি।

হামিদুল উপজেলার ঢাকী ইউনিয়নের চারিগ্রামের নোয়াহাটি গ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধা আবদুল হান্নানের ছেলে। সে সিলেটে লেপ-তোষকের ব্যবসা করতো।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, ঈদ করতে ব্যবসায়ী হামিদুল গ্রামের বাড়ি চারিগ্রামের নোয়াহাটিতে এসেছিল। রোববার (১ মে) দুপুরে হামিদুল ঝাঁকি জাল নিয়ে বাজারের পশ্চিমে কাটা নদীতে মাছ ধরতে যায়। এ সময় তার নবম শ্রেণিতে পড়ুয়া ছেলে মাহিন সাথে ছিলো। কিন্তু হামিদুল জালসহ নদী পার হতে গিয়ে নদীর পানিতে তলিয়ে গিয়ে নিখোঁজ হয়। মাহিন পানি থেকে তার পিতা উঠতে সক্ষম হবে, এ আশায় কিছুক্ষণ অপেক্ষা করে। কিন্তু বেশ সময় পরও আর উঠতে না পারায় সে বাড়ি গিয়ে স্বজনদের ঘটনাটি জানায়।

হামিদুলের নিখোঁজ হওয়ার বিষয়টি এলাকায় মাইকে ঘোষণা করার পর স্বজন ও এলাকাবাসী নদীতে খোঁজাখুজি শুরু করেন। তারা কোন খোঁজ না পেয়ে থানা পুলিশকে বিষয়টি জানান। পরে কিশোরগঞ্জ থেকে ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল ঘটনাস্থলে গিয়ে তৎপরতা শুরু করে। এ সময় মিঠামইন থানা পুলিশ তাদের সহায়তা করে। কিন্তু ওইদিন আর হামিদুলের কোন খোঁজ পাওয়া যায়নি। সোমবার (২ মে) স্বজনেরা আবার খোঁজাখুজি শুরু করেন। এক পর্যায়ে সন্ধ্যা ৬টার দিকে চারিগ্রাম ফেরিঘাট থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়। পরে সেখান থেকে বাড়িতে নিয়ে যাওয়া হয়।


আরও পড়ুন