সংঘর্ষ, ধাওয়া-পাল্টাধাওয়ায় আ’লীগের সম্মেলন

কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়ায় আওয়ামী লীগের সম্মেলন চলাকালে দলটির দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। শুক্রবার (১৩ মে) বিকেলে উপজেলার হোসেন্দী এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এতে বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন বলে খবর পাওয়া গেছে।

সংঘর্ষের কারণে প্রায় ২ ঘণ্টা সম্মেলনের কার্যক্রম বন্ধ ছিল। তবে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়ার পর আবারও সম্মেলন শুরু হয়।

স্থানীয় সূত্র জানায়, বিকেলে পাকুন্দিয়া উপজেলার হোসেন্দী আদর্শ ডিগ্রি কলেজ মাঠে ওই ইউনিয়নের ৯টি ওয়ার্ডে আওয়ামী লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলন হওয়ার কথা ছিল। একই স্থানে পাকুন্দিয়ার উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম রেনু ফুটবল খেলার আয়োজন করেন। এতে দুই পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দেয়। পরে কুমারপুর এলাকায় একটি কিন্ডারগার্টেন স্কুলে সম্মেলনের আয়োজন করেন আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা।

বিকেল সাড়ে ৩টায় কিশোরগঞ্জ-২ আসনের সাবেক এমপি ও পাকুন্দিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক সোহরাব উদ্দিনের উপস্থিতিতে পুলিশ সম্মেলনে বাধা দেয়। এ নিয়ে পুলিশের সঙ্গে তাদের তর্কাতর্কি হয়। এক পর্যায়ে দলটির দুই গ্রুপের লোকজনের মধ্যে সংঘর্ষ ও ধাওয়া-পাল্টাধাওয়ার ঘটনা ঘটে। পরে টিয়ারশেল ছুড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে পুলিশ। এ ঘটনায় এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে।

সোহরাব উদ্দিনের সমর্থক উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক ভিপি ফরিদ উদ্দিন বলেন, শুক্রবার বিকেলে হোসেন্দী বাজার সংলগ্ন একটিভ একাডেমি কিন্ডারগার্টেন স্কুলে হোসেন্দী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। সম্মেলন চলাকালে এমপি নূর মোহাম্মদের সমর্থকরা আমাদের ওপর অতর্কিত হামলা করে। এ হামলায় আমাদের কয়েকজন কর্মী আহত হয়েছেন। হামলা প্রতিহত করে সম্মেলন করা হয়েছে।

কিশোরগঞ্জ সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. আল-আমিন হোসাইন জানান, বর্তমানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।


আরও পড়ুন