ভারতে ‘হামলার হুমকি’ আল কায়েদার

ভারতের কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থাগুলো সতর্ক করে বলেছে, মহানবী (সা.) এর অবমাননার প্রতিশোধ নিতে দেশটির বিভিন্ন রাজ্য ও শহরে আত্মঘাতি বোমা হামলা চালাতে পারে ভারতীয় উপমহাদেশে আল-কায়েদা (একিউআইএস)। গত ৬ জুন তারিখের একটি চিঠিতে একিউআইএস এ হুমকি দিয়েছে। বুধবার ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস এ খবর জানায়।

চিঠিতে একিউআইএস বলেছে, তারা ‘নবীর সম্মানের জন্য’ লড়াই করতে দিল্লি, মুম্বাই, উত্তর প্রদেশ ও গুজরাটে আত্মঘাতী হামলা চালাবে। এরইমধ্যে ভারতের সব রাজ্যকে গোয়েন্দা সংস্থাগুলো হুমকির বিষয়ে অবহিত করেছে এবং তাদের উচ্চ সতর্ক থাকতে বলা হয়েছে।

ভারতীয় গণমাধ্যমের দাবি, ওই চিঠিতে মহানবী (সা.)কে অবমাননা করা হয়েছে বলে দাবি করা হয়। এতে বলা হয়, ‘এই অপমানের প্রতিক্রিয়ায় সারা বিশ্বের মুসলমানদের হৃদয়ে রক্তক্ষরণ হয়েছে এবং প্রতিশোধ ও প্রতিশোধের অনুভূতিতে পূর্ণ করেছে।’

এরইমধ্যে মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সা.)কে নিয়ে মন্তব্যের জেরে বিজেপি নেতা নুপূর শর্মাকে দল থেকে বরখাস্ত এবং দলটির দিল্লি ইউনিটের মিডিয়া প্রধান নভীন জিন্দালকে বহিষ্কার করা হয়। এ ছাড়া ভারতের উত্তরপ্রদেশ রাজ্যের কানপুরে মহানবী (সা.)কে নিয়ে অবমাননাকর টুইট করার প্রেক্ষাপটে সহিংসতার চারদিন পর বুধবার স্থানীয় এক বিজেপি নেতাকে গ্রেপ্তার করা হয়। পুলিশের উদ্ধৃত্তি দিয়ে এনডিটিভি জানায়, বিজেপি যুব শাখার নেতা হর্ষিত শ্রীবাস্তব তার আপত্তিকর পোস্টের মাধ্যমে পরিবেশ নষ্ট করার চেষ্টা করছিলেন।

গত শুক্রবার জুমার নামাজের পর কানপুরের কিছু অংশে সহিংসতা ছড়িয়ে পড়ে। জ্ঞানভাপি মসজিদ ইস্যু নিয়ে টেলিভিশন বিতর্কে অংশ নিয়ে মহানবীকে অবমাননা করে বিজেপি নেতা নুপূর শর্মার মন্তব্যের জেরে এ সহিংসতা ছড়িয়ে পড়ে। এতে কানপুর শহরের অনেক মার্কেট ও দোকানপাঠ বন্ধ হয়ে যায়। বিজেপি নেতাদের এ ধরনের মন্তব্যের প্রতিক্রিয়া এসেছে আন্তর্জাতিক পর্যায় থেকেও। বিশ্বের অন্তত ১৬টি মুসলিম দেশ এসব মন্তব্যের নিন্দা জানিয়েছে। সহিংসতায় জড়িতদের চিহ্নিত করতে কাজ করছে পুলিশ।


আরও পড়ুন