করিমগঞ্জে বন্যার্তদের মাঝে বিভাগীয় কমিশনারের ত্রাণ সহায়তা

ঢাকা বিভাগীয় কমিশনার (অতিরিক্ত সচিব) মোঃ খলিলুর রহমান বলেন, বন্যা মনুষ্য সৃষ্টি নয়, এটি প্রকৃতিক দুর্যোগ। ক্ষতিগ্রস্থরা কেউ দুঃচিন্তা করবেন না, সরকার আপনাদের পাশে রয়েছে। আপনাদের যার যা সহযোগিতা প্রয়োজন সবই পাবেন। প্রশাসনের কর্মকর্তাগণ আছেন, তারা অসহায় মানুষদের ঘরে ঘরে খাবার পৌঁছে দেবেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পক্ষ থেকে আপনাদের জন্য ত্রান বিতরণ অব্যাহত থাকবে।

বুধবার (২২ জুন) সকালে করিমগঞ্জ উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে উপজেলার সুতারপাড়া ইউনিয়নের বালিখোলা বাজারে বন্যার্তদের মাঝে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণকালে এ কথা বলেন তিনি। তিনি উপস্থিত ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের লোকজনকে সরকারের বিভিন্ন সহযোগিতার আশ্বাস দিয়ে বলেন, কেউ যেন নিজেকে অসহায় মনে না করে এজন্য জনপ্রতিনিধি ও প্রশাসনের লোকজনকে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রক্ষার প্রতি গুরুত্বারোপ করেন।

এসময় সুতারপাড়া ইউনিয়নের ১০০ টি বানভাসী পরিবারের মধ্যে পরিবার প্রতি ১০ কেজি চাল, ১ কেজি ডাল, ১ কেজি লবণ, ১ কেজি চিনি ও ১ লিটার তেল ত্রাণ সহায়তা প্রদান করেন। এছাড়া ৫০ টি পরিবার কে ১০ কেজি করে চাল দেয়া হয়েছে।

পরে মিঠামইন উপজেলার গোপদীঘি ইউনিয়নের ৭নং দৌলতপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় আশ্রয়কেন্দ্রে আশ্রিত বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত মানুষদের মাঝে তিনি শুকনো খাবার ও ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করেন।

ত্রাণ সামগ্রী বিতরণকালে উপস্থিত ছিলেন, কিশোরগঞ্জ জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ শামীম আলম, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) মোহাম্মদ গোলাম মোস্তফা, পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ মতিউর রহমান, করিমগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার পলাশ কুমার বসু, পৌর মেয়র হাজী মুসলেহ উদ্দিন সিআইপি, উপজেলা পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান হান্নান মোল্লা, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আসমা আক্তার, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা স্বপন মাতুব্বর, সুতারপাড়া ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মোঃ কামাল হোসেন ভূইয়া, ইউপি সদস্যবৃন্দ।

এর আগে মঙ্গলবার (২১ জুন) রাতে সার্কিট হাউজের সম্মেলন কক্ষে জেলা প্রশাসনের আয়োজনে কিশোরগঞ্জ জেলার বন্যা পরিস্থিতি মোকাবেলায় গৃহীত সার্বিক কার্যক্রম নিয়ে রাজনৈতিক ব্যাক্তিত্ব, বিভিন্ন সরকারি দপ্তরের কর্মকর্তাবৃন্দ ও মিডিয়া কর্মীদের সাথে মতবিনিময় করেন।


আরও পড়ুন