বিচিত্র ধরণের পোশাক ও চরিত্রে বড় পর্দায় এর আগে অনেকবার পাওয়া গেছে বলিউড অভিনেতা রণবীর সিংকে। এ নিয়ে বহুবার আলোচনায় আসেন তিনি। তবে এবার নগ্ন হয়ে ক্যামেরাবন্দি হলেন এই অভিনেতা। আর তা নিয়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়া শুরু হয়েছে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে। বেশিরভাগই রণবীরের সাহসিকতাকে অসাধারণ বলে প্রশংসা করেছেন, আবার কেউ কেউ অপসংস্কৃতি বলে গালমন্দ করছেন।

এদিকে নিজের ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্টে রণবীরের ওই নগ্ন ফটোশুটের ছবি শেয়ার করে কোলকাতার অভিনেত্রী ও সাংসদ মিমি চক্রবর্তী নেতিবাচক মন্তব্য করেছেন। তিনি লিখেন, ‘সবাই এই ছবির তলায় আগুন লিখতে ব্যস্ত। মনে প্রশ্ন জাগছে, যদি এখানে একজন নারী থাকত, তাহলে কি পরিস্থিতি আলাদা হত? আপনারা কি একইভাবে প্রশংসা করতেন নাকি নোংরা মেয়ে বলতেন? আমরা সমান অধিকারের কথা বলি, নারীদের ক্ষমতায়নের কথা বলি, কিন্তু সেটা করি কি?’

অবশেষে রণবীরের নগ্ন ফটোশুট দেখে মুখ খুললেন স্ত্রী দীপিকা। দীপিকা পাড়ুকোন এবং রণবীর সিং দুজনেই সোশ্যাল মিডিয়ায় একে ওপরের প্রশংসা করতে বিন্দুমাত্র কমতি রাখেন না। আর এই নগ্ন ফটোশুটের পর দীপিকা বলছেন, রণবীরের এই ছবিগুলি বেজায় পছন্দ হয়েছে তার। বরাবরের মত এবারও রণবীরের পাশে থেকেই সমস্ত শুট উপভোগ করেছেন তিনি।

শুট চলাকালীন প্রথম থেকে শেষ পর্যন্ত ফ্লোরেই ছিলেন দীপিকা। এবং তার এই সম্পূর্ন কনসেপ্ট যথেষ্ট পছন্দ হয়েছিল। দীপিকা সাংঘাতিকভাবে এই শুটের সময় রণবীরকে সাহায্য করেছেন। ভিন্ন এই ফটোশুটের কারণে দীপিকা একেবারে অবাকও হননি কিংবা পিছুও হটেন-নি। বরং সোশ্যাল মিডিয়ায় আপলোডের আগেই ছবিগুলি উনি দেখেছিলেন, এমনকি ছবি পোস্ট করার সম্মতিও জানিয়েছিলেন।

মূলত বলিউড অভিনেতা রণবীর সিং ‘পেপার ম্যাগাজিন’-এর জন্য ফটোশুটে অংশ নিয়েছিলেন। সেখানে তাকে সম্পূর্ণ নগ্নভাবে দেখা গেছে। যদিও এ নিয়ে অভিনেতার কোনো সংকোচ নেই। তার ভাষ্য, শারীরিকভাবে নগ্ন হয়ে যাওয়াটা আমার কাছে খুব সহজ। আমি হাজার হাজার মানুষের সামনে নগ্ন হতে পারি। আমার কিছু যায় আসে না। তবে বাকিরা অস্বস্তিতে পড়বেন।

দেখুন ভিডিওঃ নগ্নতা নিয়ে কি বললেন রণবীর? | মুখ খুললেন দীপিকা | চটেছেন মিমি

https://www.youtube.com/watch?v=mKLhPSOzWJA

Previous articleপরকীয়া : কিশোরগঞ্জে মামিকে জবাই করে হত্যা, ভাগ্নে আটক
Next articleটেকনাফের ইউএনওকে ওএসডি করার নির্দেশ
মিজবাহ উদ্দিন আহমদ (নিঝুম)। জন্ম কিশোরগঞ্জ জেলা শহরে। সেখানেই বেড়ে উঠেছেন তিনি। কিশোরগঞ্জ সরকারি গুরুদয়াল বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ থেকে রাষ্ট্রবিজ্ঞানে মাস্টার্স, রাজধানী ঢাকার সার্ক ইন্সটিটিউট অব সায়েন্স এন্ড টেকনোলজি থেকে মেডিকেল টেকনোলজিতে ডিপ্লোমা এবং পরবর্তীতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে বিএসসি ইন হেলথ টেকনোলজিতে অধ্যয়ন করছেন। রাজনীতি ও লেখালেখির প্রতি প্রবল আগ্রহ থেকেই ২০০৬ সালে যুক্ত হন সাংবাদিকতায়। সাংবাদিকতা জীবনে ২০১৫ সালের ২৬শে মার্চ প্রতিষ্ঠা করেন জনপ্রিয় জাতীয় অনলাইন সংবাদপত্র মুক্তিযোদ্ধার কন্ঠ ডটকম (http://muktijoddharkantho.com/)। নিজ হাতে গড়া এ পত্রিকায় তিনি ২০১৭ সাল পর্যন্ত বার্তা সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন এবং পরবর্তীতে নির্বাহী সম্পাদকের দায়িত্ব নিয়ে আজ অবদি অত্যন্ত নিষ্ঠা ও সাহসীকতার সাথে দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন। এছাড়াও ব্যক্তিগত জীবনে তিনি গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের একটি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আরটি-পিসিআর ল্যাবে মেডিকেল টেকনোলজিষ্ট (করোনা যোদ্ধা) হিসেবে কর্মরত আছেন। সেখানেও করোনা যুদ্ধের সময় বিচক্ষণতা ও সাহসীকতার জন্য তিনি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ সর্বমহলে জনপ্রিয়। ফেইসবুক প্রোফাইল : https://web.facebook.com/nizum88/