নিকলীতে ইভটিজিংয়ের প্রতিবাদ করায় শিক্ষক লাঞ্ছিত, আটক ১

কিশোরগঞ্জের নিকলী উপজেলার দামপাড়া কারার মাহতাব উদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয়ে ইভটিজিংয়ের প্রতিবাদ করায় আবারও এক শিক্ষক লাঞ্ছিত হয়েছেন। গত ২৩ মে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. দেলোয়ার হোসেন লাঞ্ছিত হন। এবার লাঞ্ছিত হয়েছেন মো. আবদুস সাত্তার নামে একজন শিক্ষক।

সোমবার (২৫ জুলাই) সকাল সাড়ে ১০টার দিকে দামপাড়া কারার মাহতাব উদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয়ে ঢুকে বহিরাগত ছেলেরা ছাত্রীদের উত্যক্ত করলে এর প্রতিবাদ করতে গিয়ে বিদ্যালয়ের খণ্ডকালীন শিক্ষক মো. আবদুস সাত্তার লাঞ্ছিত হন।

এ ঘটনায় মো. আসিফ মিয়া (১৫) নামে এক উত্যক্তকারীকে আটক করা হয়েছে। সে নিকলী সদরের আছাম উদ্দিনের ছেলে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, আসিফ ও তার বেশ কয়েকজন বন্ধু নৌকা দিয়ে ঘোরাঘুরির এক পর্যায়ে সোমবার (২৫ জুলাই) সকাল সাড়ে ১০টার দিকে দামপাড়া কারার মাহতাব উদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয়ে ক্লাশ চলাকালে সেখানে ঢুকে পড়ে। এ সময় তারা বিদ্যালয়ের নতুন ভবনের সামনে ৯ম ও ১০ম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের উত্যক্ত করা শুরু করে। বিষয়টি বিদ্যালয়ের খণ্ডকালীন শিক্ষক মো. আবদুস সাত্তারের নজরে এলে তিনি বহিরাগত ছেলেদের বাধা দেন। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে বহিরাগত ছেলেরা ওই শিক্ষকের ওপর চড়াও হয় এবং খণ্ডকালীন শিক্ষক মো. আবদুস সাত্তারকে লাঞ্ছিত করে। এ ঘটনায় আসিফকে আটক করা হয়।

এ ব্যাপারে নিকলী থানার ওসি মুহাম্মদ মনসুর আলী আরিফ জানান, এ ঘটনায় ভুক্তভোগী শিক্ষক থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। এ ব্যাপারে পরবর্তী আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

প্রসঙ্গত, এর আগে গত ২৩ মে ইভটিজিংয়ের প্রতিবাদ করায় কারার মাহতাব উদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. দেলোয়ার হোসেন লাঞ্ছিত হন। এর প্রতিবাদে বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা ক্লাশ ও এসএসসির নির্বাচনী পরীক্ষা বর্জন করে বিক্ষোভ ওইদিন বিক্ষোভ করে। বিক্ষোভে এলাকার সচেতন মানুষজনও একাত্মতা প্রকাশ করেন।


আরও পড়ুন