হেঁটে ময়মনসিংহ থেকে টুঙ্গিপাড়া যাচ্ছেন মোস্তফা

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কবর জিয়ারত করতে হেঁটে ময়মনসিংহের ফুলপুর থেকে গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়া যাচ্ছেন মো. মোস্তফা মিয়া (৭১) নামে এক বৃদ্ধ। তিনি জেলার ফুলপুর উপজেলার পয়ারী ইউনিয়নের সাহাপুর গ্রামের বাসিন্দা। তিনি পয়ারী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য।

গত সোমবার (৮ আগস্ট) বেলা ১১টার দিকে বাড়ি থেকে টুঙ্গিপাড়ার উদ্দেশে যাত্রা শুরু করেন মোস্তফা মিয়া। সর্বশেষ বৃহস্পতিবার (১১ আগস্ট) সকালে গাজীপুরের শ্রীপুর থেকে মাওনার উদ্দেশ্যে হাঁটছেন তিনি।

মোস্তফার বড় ছেলে মো. মনিরুজ্জামান এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, গত সোমবার বাড়ি থেকে হেঁটে দুপুর ১২টার দিকে ফুলপুর উপজেলা প্রশাসন চত্বরে এলে তাকে সংবর্ধনা দেওয়া হয়। পরে বিকেল ৩টার দিকে আবারও হাঁটা শুরু করেন তিনি। ওইদিন ময়মনসিংহ সদর উপজেলার গোপালপুর এলাকায়, মঙ্গলবার ভালুকা উপজেলার ভরাডোবা এবং বুধবার গাজীপুরের শ্রীপুর এলাকায় রাত্রিযাপন করেন। পরে বৃহস্পতিবার সকালে মাওনার উদ্দেশ্যে রওনা হন।

মো. মোস্তফা মিয়া বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কবর জিয়ারত করার আশা আমার দীর্ঘদিনের। সেই ইচ্ছা পূরণ করতে এবং বঙ্গবন্ধুর প্রতি শ্রদ্ধা ও ভালবাসা থেকেই হেঁটে যাচ্ছি। যতদিনে যাওয়া সম্ভব হবে ততদিনেই যাব।

স্থানীয়ভাবে প্রচার রয়েছে, পঁচাত্তরের ১৫ আগস্ট জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে হত্যার পর জুতা পড়া ছেড়ে দিয়েছিলেন ‘বঙ্গবন্ধুপাগল’ এই মোস্তফা। দীর্ঘ ২৫ বছর তিনি জুতা না পড়ে কাটিয়েছেন। এমনকি খালি পায়ে বিয়ে করতেও গিয়েছিলেন মোস্তফা।

পরবর্তীতে বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডের বিচারের রায় ঘোষণা করা হলে ময়মনসিংহ-২ (ফুলপুর-তারাকান্দা) আসনের পাঁচ বারের নির্বাচিত সংসদ সদস্য ভাষাসৈনিক মরহুম এম শামছুল হক তাকে জুতা কিনে দেন ও স্থানীয় আওয়ামী লীগের প্রবীণ নেতাদের অনুরোধে তিনি জুতা পড়েন।


আরও পড়ুন