আন্দোলনকারীদের যেন গ্রেপ্তার করা না হয় : প্রধানমন্ত্রী

বিভিন্ন ইস্যুতে আন্দোলনে থাকা বিরোধী দলের নেতাকর্মীদের গ্রেপ্তার না করার জন্য বলেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

আজ রোববার সকালে গণভবনে আওয়ামী লীগের ৮টি বিভাগের সাংগঠনিক সম্পাদকদের সঙ্গে আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন।

শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমাদের বিরোধীরা একটা সুযোগ পাচ্ছে। তারা আন্দোলন করবে, করুক। আমি আজকেও নির্দেশ দিয়েছি, খবরদার যারা আন্দোলন করছে তাদের কাউকে যেন গ্রেপ্তার করা না হয়।’

বিশ্বব্যাপী চলমান মন্দার কথা উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, এ নিয়ে দেশে গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় বিরোধীরা আন্দোলন করতে পারে। কিন্তু তাদের আন্দোলনে দেশের ক্ষতির পাশাপাশি মানুষের কষ্ট বাড়াবে সেটিও তাদের বোঝা উচিত।

তিনি বলেন, ‘তারা আন্দোলন (বিএনপি) করে কতটুকু সফল হবে জানি না, কিন্তু তারা যেভাবে করতে চাচ্ছে তাতে দেশের জন্য ক্ষতি হবে। তাদের আন্দোলন আমরা সামাল দিতে পারব, সেই বিশ্বাস আমার আছে।’

সরকারপ্রধান বলেন, ‘মানুষের কষ্ট হচ্ছে সেটা আমরা বুঝতে পারছি। সেজন্য বর্তমান সরকার সেই কষ্ট লাঘবের চেষ্টা করছে। বিশ্ব বাজারে জ্বালানি তেলের দাম কমার সঙ্গে সঙ্গে দেশেও সমন্বয় করা হবে। দেশের কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রগুলোর উৎপাদন শুরু হলে বিদ্যুতের এই সমস্যা অনেকটাই দূর হয়ে যাবে।’

তিনি বলেন, ‘আমাদের কিছু লোক আছে বিভিন্ন ছুতা ধরে জিনিসের দাম বাড়িয়ে দেয়। না হলে এত দাম তো বাড়ার কথা নয়।’

সরকার জনগণের কাছে দেওয়া সব প্রতিশ্রুতির সফলভাবে বাস্তবায়ন করেছে উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, ‘যদি এই করোনা, রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ এবং স্যাংশন ও পাল্টা স্যাংশন না হতো, তাহলে আমাদের দেশ কখনই সমস্যায় পড়ত না। আমরা এগিয়ে যেতে পারতাম। কেন না, যে ক্ষেত্রগুলো আমাদের আমদানিনির্ভর সেখানেই সমস্যাটা দেখা দিচ্ছে।’

প্রধানমন্ত্রী অনেকটা ক্ষোভের সঙ্গে বলেন, ‘স্যাংশন দিয়ে লাভটা কী হলো। বাস্তবিক যদি লাভ কারও হয় তাহলে সেটা আমেরিকা এবং রাশিয়ারই হয়েছে। বিশ্ব বাজারে ডলার এবং রুবেলের মূল্যবৃদ্ধি পেয়েছে। দুর্ভোগ পোহাচ্ছে সাধারণ মানুষ।’


আরও পড়ুন