করিমগঞ্জে বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণ, ধর্ষকের যাবজ্জীবন

কিশোরগঞ্জে করিমগঞ্জে কিশোরীকে বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণের দায়ে এক যুবকের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও এক লাখ টাকা জরিমানা করেছে আদালত। রোববার (৬ নভেম্বর) বিকালে কিশোরগঞ্জের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মোহাম্মদ হাবিবুল্লাহ আসামির উপস্থিতিতে এ রায় ঘোষণা করেন।

দণ্ডিত যুবক মো. রিয়াদ করিমগঞ্জ উপজেলার গুজাদিয়া ইউনিয়নের ঢালার পাড় গ্রামের মৃত লুৎফর রহমানের ছেলে।

মামলার বিবরণে জানা গেছে, রিয়াদ প্রতিবেশী কিশোরীকে রাস্তাঘাটে প্রেম নিবেদনসহ উত্যক্ত করে আসছিল। এভাবে বছর খানেক যাওয়ার পর কিশোরীর সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। বাড়িতে পরিবারের লোকজনের অনুপস্থিতির সুযোগে ২০১৮ সালের ১৫ মার্চ রাতে রিয়াদ কিশোরীর বাড়িতে গিয়ে বিয়ের প্রলোভনে জোর করে ধর্ষণ করে। পরিবারের লোকজন বাড়িতে এসে ঘটনাটি জানার পর রিয়াদ ও তার পরিবারকে বিয়ের ব্যাপারে চাপ দিলে অচিরেই বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে কালক্ষেপণ করতে থাকে। এ পরিস্থিতিতে কিশোরী অন্তঃস্বত্ত্বা হয়ে পড়ার পরও বিয়ে না করায় ২০১৮ সালের ১৭ মে কিশোরীর মা বাদী হয়ে রিয়াদকে আসামি করে করিমগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করেন।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা করিমগঞ্জ থানার এসআই আব্দুল্লাহ আল মাসুদ ২০১৯ সালের ৯ ফেব্রুয়ারি নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে মো. রিয়াদকে অভিযুক্ত করে চার্জশীট দাখিল করেন।

সাক্ষ্য-জেরায় বিচারিক প্রক্রিয়া শেষে রোববার বিচারক এ মামলার রায় ঘোষণা করেন।


আরও পড়ুন