শুল্ক ফাঁকি দিয়ে চোরাই পথে ভারতীয় পণ্য এনে ব্যবসা

কিশোরগঞ্জের করিমগঞ্জে বিপুল পরিমাণ ভারতীয় শাড়ি, লেহেঙ্গা, তেল, ফেসওয়াশ ও ওষুধসহ ৪ চোরাকারবারিকে আটক করেছে র‌্যাব। বৃহস্পতিবার (১২ জানুয়ারি) দিনগত রাতে উপজেলার সুতারপাড়া ইউনিয়নের বালিখোলা বাজারঘাট সংলগ্ন মো. কুতুব উদ্দিনের দোকান থেকে ভারতীয় পণ্যসহ তাদের আটক করা হয়।

শুক্রবার (১৩ জানুয়ারি) সকালে প্রেস ব্রিফিংয়ের মাধ্যমে এ বিষয়টি নিশ্চিত করেন র‌্যাব-১৪ কিশোরগঞ্জ ক্যাম্পের কোম্পানি অধিনায়ক মেজর মো. শাহরিয়ার মাহমুদ খান।

আটকরা হলেন- সুতারপাড়া ইউনিয়নের ৪ নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মো. কুতুব উদ্দিন (৪০), সুনামগঞ্জ জেলার সদর উপজেলার কান্দাপাড়া নারায়ণতলার মৃত আব্দুল মোতালিবের ছেলে মাসুক মিয়া (২৪), শাল্লা উপজেলার আটগাঁও ইউনিয়নের মামুদনগর গ্রামের মো. মকসুদ আলীর ছেলে মো. আক্তার হোসেন (৩২) ও একই গ্রামের মো. সুরুজ আলীর ছেলে আবু সিদ্দিক (৩২)।

মেজর মো. শাহরিয়ার মাহমুদ খান জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গতকাল সন্ধ্যার দিকে করিমগঞ্জ উপজেলার বালিখোলা বাজার ঘাট সংলগ্ন কুতুব উদ্দিনের দোকানে অভিযান পরিচালনা করে র‌্যাবের দুইটি দল। এসময় ওই ৪ চোরাকারবারিকে আটক করা হয়।

পরে দোকানের গুদাম ঘর তল্লাশি করে ২ হাজার ৯৬৮টি ভারতীয় শাড়ি, ৩৯৯টি ভারতীয় লেহেঙ্গা, ২ হাজার ১৯২টি ভারতীয় ডাবর আমলা তেলের বোতল, ২ হাজার ৫২০টি হিমালয়া নিম ফেসওয়াশসহ টুথপেস্ট, ৩ হাজার ৩৬০টি বোরোলিন এন্টিসেপ্টিক ক্রিম (ওষুধের কৌটা), ৮ হাজার ৬৪০ পিস কাবেরি মেহেন্দি ও পণ্য বিক্রির ৪৪ হাজার ৯০০ টাকা উদ্ধার করে জব্দ করা হয়। যার আনুমানিক মূল্য এক কোটি ৫ লাখ ৬৪ হাজার ৬৮০ টাকা। অভিযানে আটকের পর ৪ চোরাকারবারির বিরুদ্ধে করিমগঞ্জ থানায় মামলা হয়েছে।

চক্রটি বাংলাদেশ সরকারের শুল্ক কর ফাঁকি দিয়ে সুনামগঞ্জ সীমান্তপথে ভারত থেকে অবৈধভাবে বিভিন্ন পণ্য আমদানি করে আসছিল। পরে নিরাপদ হিসেবে কিশোরগঞ্জের নৌরুট ব্যবহার করে বিভিন্ন জেলায় তাদের সিন্ডিকেট সদস্যদের মাধ্যমে বিক্রয় করতো বলেও জানান র‍্যাবের এই কর্মকর্তা।


আরও পড়ুন