কিশোরগঞ্জে হবে পাঁচ হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে উড়ালসড়ক

হাওর অঞ্চলে পাঁচ হাজার ৬৫১ কোটি টাকা ব্যয়ে উড়ালসড়ক নির্মাণের একটি প্রকল্প নিয়েছে সরকার। এখানে মূল উড়ালসড়ক নির্মাণে খরচ হবে ২ হাজার ৭৭৩ কোটি টাকা। বাকি প্রায় তিন হাজার কোটি টাকা ব্যয় হবে জমি অধিগ্রহণ, জমিতে স্থাপনা বাবদ ক্ষতিপূরণ, উড়াল সড়কে সংযোগ সড়কের জন্য ছোট ছোট চারটি সেতু নির্মাণ এবং সড়ক প্রশস্ত করতে। কিশোরগঞ্জের মিঠামইন উপজেলা থেকে শুরু হয়ে করিমগঞ্জ উপজেলার মরিচখালিতে গিয়ে শেষ হবে উড়ালসড়কটি।

পরিকল্পনা কমিশন বলছে, আগামী মঙ্গলবার (১৭ জানুয়ারি) প্রকল্পটি অনুমোদনের জন্য উত্থাপন করা হবে। সরকারের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, অগ্রাধিকার ভিত্তিতে এ প্রকল্প নেওয়া হয়েছে। ধাপে ধাপে এতে অর্থ ব্যয় করা হবে।

প্রকল্পের নথি ঘেঁটে জানা যায়, ১৫ দশমিক ৩১ কিলোমিটার দৈর্ঘ্যের উড়ালসড়কটি নির্মাণে খরচ ধরা হয়েছে ২ হাজার ৭৭৩ কোটি টাকা। উড়ালসড়ক নির্মাণে ১৫১ একর জমি অধিগ্রহণ করতে হবে বাস্তবায়নকারী সংস্থা সেতু বিভাগকে। এ জমি অধিগ্রহণে খরচ হবে ২৬৬ কোটি টাকা।

প্রকল্পের আওতায় মোট চারটি সেতু বানানো হবে। ২টি সেতুর দৈর্ঘ্য ৪৩০ মিটারের। একটি ৩৩০ মিটার, অন্যটি ৪০ মিটার দৈর্ঘ্যের। সব মিলিয়ে ১ হাজার ২৩০ মিটার দৈর্ঘ্যের সেতু বানাতে খরচ পড়বে ১ হাজার ১৪৭ কোটি টাকা।

প্রকল্প এলাকায় জমি অধিগ্রহণের ফলে ১ হাজার ১৩২টি পরিবার ক্ষতিগ্রস্ত হবে। তাদের ক্ষতিপূরণে সরকারের খরচ হবে ২৩০ কোটি টাকা। এ প্রকল্পের আওতায় ১৩ কিলোমিটার সড়ক প্রশস্তও করা হবে। সেখানে খরচ হবে ৪৩৩ কোটি টাকা। এসব ছাড়াও যানবাহনের জ্বালানি, অফিসভাড়া, নিয়োগপ্রাপ্ত ব্যক্তিদের বেতন-ভাতা ও অন্যান্য নানা খাতের খরচ মিলে মোট খরচ হবে ৫ হাজার ৬৫১ কোটি টাকা।


আরও পড়ুন