ইতালির মোস্ট ওয়ান্টেড মাফিয়া বস গ্রেপ্তার

৩০ বছর ধরে পুলিশকে ধোকা দেয়ার পর, সোমবার গ্রেপ্তার হয়েছে ইটালির ‘মোস্ট ওয়ান্টেড’ আসামী, মাফিয়া বস মাত্তেও মেসিনা ডেনারো। ইটালির কুখ্যাত অপরাধ চক্র ‘কোসা নস্ট্রা’র প্রধান ছিল সে। ১৯৯৩ সাল থেকে সে ইটালির মোস্ট ওয়ান্টেড তালিকায় ছিল। এর মধ্যে সে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডে দণ্ডিতও হয়েছে। তবে এতদিন পুলিশ তাকে অনেক চেষ্টা করেও ধরতে পারেনি।

পুলিশ জানয়েছে, ইতালির অর্ন্তগত ভূমধ্যসাগরের বৃহত্তম দ্বীপ সিসিলির রাজধানী পালেরমোর এক প্রাইভেট ক্লিনিক থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। সেখানে কেমোথেরাপি নিতে গিয়েছিল ডেনারো।

ইটালির প্রেসিডেন্ট জর্জিয়া মেলোনি টুইটারে লিখেছেন, এটা আমাদের দেশের জন্য বড় জয়। এই ঘটনা প্রমাণ করে দিয়েছে, ইটালিতে মাফিয়া-সম্পর্কিত অপরাধের বিরুদ্ধে লড়াই আমাদের সরকারের অগ্রাধিকার।

কিন্তু কে এই মাত্তেও মেসিনা ডেনারো? কীভাবে সে হয়ে উঠল ইটালির সবথেকে কুখ্যাত মাফিয়া বস?

১৯৬২ সালের ২৬ এপ্রিল ইটালির সিসিলির শহর কাস্টেলভেট্রানোতে জন্মেছিল ডেনারো। অবশ্য, ‘ডায়াবলিক’ নামেই সে বেশি পরিচিত ছিল। ডায়াবলিক এক কমিক্স বইয়ের চরিত্র। ইটালি সরকারের ওয়ান্টেড পোস্টারে বলা হয়েছে, ১৯৯৩ সাল থেকে সে পলাতক ছিল। তার বিরুদ্ধে মাফিয়া রাজত্ব চালানোর পাশাপাশি, হত্যা, গুরুতর শারীরিক আঘাত এবং আরও অনেক অপরাধের অভিযোগ রয়েছে।

শুধু ইটালিরই নয়, গোটা ইউরোপেরই অন্যতম মোস্ট ওয়ান্টেড পলাতক হিসেবে দেখা হত তাকে। পশ্চিম সিসিলির বন্দর শহর ট্রাপানি ছিল ডেনারোর একটি শক্তিশালী ঘাঁটি। ইটালির মাফিয়া জগতের “বস অব বসেস” সালভাতোর টোটো রিনার প্রধান উত্তরসূরি মনে করা হত তাকে। গত নভেম্বরে মৃত্যু হয়েছে টোটোর। সেই সময় সে ২৬টি যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ভোগ করছিল।

পলাতক অবস্থাতেই যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেয়া হয়েছিল ডেনারোকেও। ১৯৯২ সালে সিসিলিতে দুটি বোমা হামলার জন্য তাকে এই সাজা দেয়া হয়েছিল। ওই বোমা হামলায় শীর্ষস্থানীয় মাফিয়া বিরোধী দুই সরকারি আইনজীবী, জিওভানি ফ্যালকন এবং পাওলো বোরসেলিনো সেই সঙ্গে ফ্যালকনের স্ত্রী এবং তাদের বেশ কয়েকজন দেহরক্ষীর নিহত হয়েছিলেন। ফ্যালকন এবং বোরসেলিনো হত্যার পরই লোকচক্ষুর আড়ালে চলে গিয়েছিল মেসিনা ডেনারো। তারপর থেকে ৩০ বছর আত্মগোপন করে ছিল।

এছাড়াও ইতালির ফ্লোরেন্স, রোম এবং মিলানেও বোমা হামলার জন্য যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে ডেনারোকে। এই তিনটি হামলা হয়েছিল ১৯৯৩ সালে। এই হামলায় সব মিলিয়ে ১০ জন নিহত এবং ৯৩ জন আহত হয়েছিলেন।

ডেনারোর অন্যান্য গুরুতর অপরাধের মধ্যে ছিল মাফিয়া জগত ছেড়ে যাওয়া এক ব্যক্তির ছেলেকে নৃশংসভাবে হত্যা করা। তাকে অপহরণ করে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছিল। তারপর, দেহটি পুড়িয়ে দেয়া হয়েছিল অ্যাসিড দিয়ে।


আরও পড়ুন