নীলের বেলাভূমি রাজ্যে চবি লোকপ্রশাসন (এমএমএস) তেত্রিশ ব্যাচ

Muktijoddhar Kantho , Muktijoddhar Kantho
ফেব্রুয়ারি ২১, ২০১৮ ১০:১০ অপরাহ্ণ

মাহবুবুর রহমান।। মন ভালো রাখতে হলে প্রকৃতির কোন বিকল্প নেই। তাইতো প্রকৃতিই মানুষকে উদার হতে সাহায্য করে। দেশের সেসব প্রাকৃতিক জায়গা গুলো দেখলে মনে হবে, সৃষ্টিকর্তা নিজ হাতে তৈরী করে দিয়েছেন ভ্রমন পিপাসুদের জন্য।

ব্যস্ততম এ জীবনযাত্রার মাঝে হৃদয়ে প্রশান্তি এনে দিতে, প্রকৃতির অপরূপ সৌন্দর্যকে উপভোগ করতে এবং তা থেকে শিক্ষালাভের জন্য এমনই একটি পর্যটন স্থান স্বপ্নময়ী দ্বীপ সেন্টমার্টিন। বার্ষিক শিক্ষাসফরের জন্য নির্বাচন করে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় এমএসএস লোকপ্রশাসন পরিবার। এছাড়াও ঘুরে আসে দেশের স্থল সীমানার শেষ প্রান্ত ছেঁড়া দ্বীপ।

গত ১৭ ফেব্রুয়ারি রাতে শিক্ষাসফরের ব্যবস্থপনা প্রধান ও লোকপ্রশাসন বিভাগের চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. আমির মো. নসরুল্লাহ, প্রফেসর ড. নুরুল ইসলাম, শিক্ষক মোহাম্মদ ইয়াকুব ও নাছির উদ্দিন লোকপ্রশাসন পরিবারের প্রায় ৯০ জন সদস্যকে নিয়ে ক্যাম্পাস থেকে বাস সেন্টমার্টিনের উদ্দেশ্য যাত্রা শুরু করে।

যাত্রা পথেই আনন্দ উল্লাসে মেতে উঠে পরিবারের সদস্যরা। অপেক্ষার প্রহর যেন শেষ হচ্ছেনা। বাসের মধ্যেই নাচ, গান, হৈ-হুল্লোড় কেউ বা সেলফি তুলে ফেসবুকের মাধ্যমে আনন্দ গুলো ছড়িয়ে দিচ্ছিলো বাহিরের বন্ধুদের মাঝেও। শাঁ শাঁ করে চলতে থাকা বাস যখন চট্টগ্রামের রাস্তা অতিক্রম করে টেকনাফের পথে এগিয়ে যায়। তখন থেকেই প্রকৃত পক্ষে অপরূপতার আভাস মেলে। নির্জন পথ, উঁচুনিচু টিলার মাঝ দিয়ে মসৃণ রাস্তা যেন হৃদয়কে নাড়া দিয়ে যায়। লং ড্রাইভে যাওয়ার জন্য মনে হয় এর থেকে সুন্দর রাস্তা খুজে পাওয়া দুষ্কর। একই ব্যাচের শিক্ষার্থী মো. ইয়ামিন ভূইঁয়া বলেন, “আমি অনেক দর্শনীয় স্থানে ঘুরেছি কিন্তু সেন্টমার্টিনে কখনো যাইনি। ডিপার্টমেন্ট থেকে যখন এই স্থানে যাওয়ার জন্য সিলেক্ট করে আমি তখন থেকেই যাওয়ার জন্য এক্সাইটেড ছিলাম।আমি যতটুকু ধারণা করেছিলাম তার থেকে সেন্টমার্টিন অনেক সুন্দর। দিনগুলো স্বপ্নের মতো ছিল। আনন্দ উল্লাসের পাশাপাশি অনেক কিছু শিখেছিও।”

Leave A Reply

Your email address will not be published.

সর্বশেষ পাওয়া