ফিচার - August 11, 2018

অবহেলিত জনগোষ্ঠীর জীবনমান উন্নয়নে এক প্রচেষ্টার নাম বয়স্ক ভাতা

আহমেদ আবু সাইম, কমিউনিটি মিডিয়া ফেলো ।। সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচি বাংলাদেশ সরকারের এক মহৎ উদ্যোগ যা সমাজের বঞ্চিত, অবহেলিত জনগোষ্ঠীর জীবনমান উন্নয়নের এক বৃহৎ প্রচেষ্টা। সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচী বাস্তবায়নে সমাজসেবা অধিদফতরসহ সরকারের ২৯টি বিভাগ কার্যকর ভূমিকা পালন করে আসছে। সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচীর আওতায় বর্তমানে বয়স্ক ভাতা, বিধবা ও স্বামী নিগৃহীত ভাতা, অসচ্ছল প্রতিবন্ধী ভাতা ইত্যাদি উল্লেখযোগ্য। বাংলাদেশের মোট জনসংখ্যার প্রায় অর্ধেক দারিদ্র্যসীমার নিচে বাস করে। এর মধ্যে যারা ভূমিহীন, বিত্তহীন এবং বার্ধক্যের কারণে দৈহিক পরিশ্রমে অক্ষম তারাই সবচেয়ে বেশি দারিদ্র্যের শিকার। বয়স্ক এবং কাজ করতে অক্ষম দরিদ্র জনগোষ্ঠীর জন্য বাংলাদেশ সরকার বয়স্ক ভাতা প্রদান কর্মসূচী চালু করেছে। ১৯৯৭-৯৮ অর্থবছর হতে প্রাথমিকভাবে দেশের সকল ইউনিয়ন পরিষদের প্রতিটি ওয়ার্ডে ৫ জন পুরুষ ও ৫ জন মহিলাসহ ১০ জন দরিদ্র বয়োজ্যেষ্ঠ ব্যক্তিকে প্রতি মাসে ১০০ টাকা হারে ভাতা প্রদানের আওতায় আনার মাধ্যমে বর্তমান সরকার সমাজের অবহেলিত এসব মানুষকে সামাজিক সুরক্ষা কর্মসূচীতে অন্তর্ভুক্ত করেছিলেন। পরবর্তীতে দেশের সকল পৌরসভা ও সিটি কর্পোরেশনকে এ কর্মসূচীর আওতাভুক্ত করা হয়। বর্তমানে বয়স্কভাতা কার্যক্রমে অধিকতর স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিতকরণ এবং সর্বমহলে গ্রহণযোগ্য করে তোলার জন্য বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে। এসব পদক্ষেপের মধ্যে, ২০০৪ সালে প্রণীত বাস্তবায়ন নীতিমালা সংশোধন করে যুগোপযোগীকরণ, অধিক সংখ্যক মহিলাকে ভাতা কার্যক্রমের আওতায় অন্তর্ভুক্তির লক্ষ্যে মহিলাদের বয়স ৬৫ বছর থেকে কমিয়ে ৬২ বছর নির্ধারণ, উপকারভোগী নির্বাচনে স্থানীয় সংসদ সদস্যসহ অন্যান্য জনপ্রতিনিধিদের সম্পৃক্তকরণ, ডাটাবেইজ প্রণয়নের উদ্যোগ গ্রহণ এবং ১০ টাকার বিনিময়ে সকল ভাতাভোগীর নিজ নামে ব্যাংক হিসাব খুলে ভাতার অর্থ পরিশোধ করা হচ্ছে। ২০০৯-১০ অর্থ বছরে বয়স্কভাতাভোগীর সংখ্যা ২০ লক্ষ জন থেকে বৃদ্ধি করে ২২ লক্ষ ৫০ হাজার জনে এবং জনপ্রতি মাসিক ভাতার হার ২৫০ টাকা থেকে বৃদ্ধি করে ৩০০ টাকায় উন্নীত করা হয়। ২০১০-১১ অর্থ বছরে বয়স্কভাতাভোগীর সংখ্যা ২ লক্ষ ২৫ হাজার জন বৃদ্ধি করে ২৪ লক্ষ ৭৫ হাজার জনে উন্নীত করা হয়। ২০১৬-১৭ অর্থবছরে ৩১ লাখ ৫০ হাজার বয়স্ক ব্যক্তিকে জনপ্রতি মাসিক ৫০০ টাকা হারে ভাতা প্রদান করা হয়। ২০১৭-১৮ অর্থবছরে বয়স্কভাতা ভোগীর সংখ্যা বৃদ্ধি করে ৩৫ লাখে উন্নীত করা হয়। ২০১৮-১৯ অর্থবছরে বয়স্কভাতা ভোগীর সংখ্যা বৃদ্ধি করে ৪০ লাখে এবং ভাতার পরিমাণ বাড়িয়ে ৬০০ টাকায় উন্নীত করা হয়েছে। সরকারী তথ্য অনুযায়ী মোট জনসংখ্যার শতকরা সাত ভাগ লোক বয়স্ক হিসেবে চিহ্নিত। এর শতকরা বিশভাগ লোক এ বেষ্টনীর আওতাভুক্ত।


আরও পড়ুন

২ Comments

  1. I just want to mention I am all new to blogging and absolutely savored your web site. Almost certainly I’m likely to bookmark your blog . You really come with beneficial posts. With thanks for sharing with us your website.

Comments are closed.