কিভাবে পাবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে চান্স?

উমর ফারুক , রাবি প্রতিনিধি
সেপ্টেম্বর ৯, ২০১৮ ৮:০৪ অপরাহ্ণ
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়! সকল শিক্ষার্থীর স্বপ্নের ক্যাম্পাস। দেশের সব্বোর্চ বিদ্যাপীঠ লেখাপড়া করতে কার না মন চায়। সর্ব প্রথম শিক্ষার্থীদের লক্ষ্য থাকে প্রাচ্যের অক্সফোর্ড খ্যাত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়। তাই ভর্তিচ্ছু সকল শিক্ষার্থী ভর্তি পরীক্ষা প্রস্তুতি নিচ্ছো। যারা মানবিক বিভাগ থেকে আবেদন করতে চাচ্ছো। তাদের লক্ষ্য বি ইউনিট থাকে। এই ইউনিটে আইনের মত অনেক ভাল সাবজেক্টস রয়েছে। যা এই ইউনিটের সকলের আকর্ষন মাত্রা বাড়িয়ে তুলে।
 ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সাধারণত বি ইউনিটে বাংলা, ইংরেজী ও সাধারণ জ্ঞান থেকে প্রশ্ন করা হয়। বি ইউনিট থেকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এ চান্স পাওয়া তুলনামূলক সহজ হয়ে থাকে ।কারণ অন্যান্য ইউনিটের তুলনায় বি ইউনিটে আসন সংখ্যা অনেক বেশী।তাছাড়া মাত্র তিনটি বিষয়ে উপর ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয় বলে চান্স পাওয়া ক্ষেত্রে অন্য ইউনিট থেকে একটু সহজতর হয়। পরিশ্রমই যখন সৌভাগের প্রসূতি। সঠিক ভাবে দিকনির্দেশনা মোতাবেক পড়াশোনা করলে অবশ্যই সাফল্যের দেখা পাবে।
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বি ইউনিটের প্রস্তুতি নিয়ে আজকের বিষয় ভিত্তিক সামান্য নির্দেশনা  যা ভর্তি পরীক্ষায় কাজে লাগবে।
বাংলার জন্য মূল পাঠ্য বইয়ের বিকল্প নেই। পাঠ্য বই যত বেশি করে পড়বে তত বেশি তোমার প্রস্তুতি ভাল হবে। প্রতি বছর বি ইউনিটে ৭-৮ টা প্রশ্ন মূলল বই থেকে আসে। তাই মূল বই পড়লেই ভাল করবে এবং বাংলা ব্যাকরণ অনেকের কাছে জটিল বিষয় মনে হয়। কিন্তু এ ব্যাকরণ ও বেসিক থেকে ই বেশী প্রশ্ন হয়ে থাকে। বাংলা ব্যাকরণ এর বেসিক জানা থাকলে তোমার প্রশ্ন অনেক কমন পড়বে এবং বাংলা অংশে ভাল করতে পারবে।
ইংরেজির জন্য ও মূলপাঠ্য বই পড়ার কোনও বিকল্প নেই। আর ভোকাবুলারি অংশ থেকে প্রতিবছর ৩-৪ প্রশ্ন এসে থাকে,তাই এ বিষয়টি ও মাথায় রেখে পড়াশোনা করবে। আর ইংরেজী ব্যাকরণ অংশের জন্য বেসিক গুলো বেশী করে দেখবা যেগুলো পড়ে এসেছো  ঠিক সেগুলো। বিগত দুই বছর গ্রামারের যে আইটেম গুলা পড়েছো সেগুলো শুধু প্র্যাকটিস করলেই হবে।
সাধারণ জ্ঞান বেশী মার্কস পেলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় চান্স পাওয়ার ক্ষেত্রে একধাপ এগিয়ে থাকবে। তাই সাধারণ জ্ঞানের বিকল্প নেই। সেজন্য বিগত সালের প্রশ্নব্যাংক উপর বেশী জোর দাও তাহলে অনেক প্রশ্নই কমন পড়বে। সাধারণ জ্ঞান নিয়ে টেনশন করার কোনো কারণ ই নেই। লাইব্রেরী থেকে যে কোনও ভাল মানের বই থেকে সাধারণন জ্ঞানের  প্রস্তুতি সম্পন্ন করতে পারো।
ঢাবিতে বি ইউনিট পরীক্ষা  নিয়ে মোটেও চিন্তিত হবার কোন কারন নেই।সবাই যখন কোচিং নিয়ে  ব্যস্ত কিন্তু অনেকে কোচিং  না করেও অদম্য প্রচেষ্টা সফল হয়ে থাকে। পড়াশোনা কোন বিকল্প নেই তুমি যেখান থেকেই পড় না কেন সঠিক দিকনির্দেশনা অনুযায়ী পড়াশোনা করলে সফল তুমি হবেই।বিগত বছরের প্রশ্ন বিশ্লেষণ করে “প্রত্যয়” বইটি শেষ মূহুর্তের প্রস্তুতির জন্য বিশেষভাবে রচিত।একটি সঠিক সিদ্ধান্ত তোমার সুন্দর ভবিষ্যত গড়তে সাহায্য করবে। বই মানুষের অকৃত্তিম বন্ধু। জগতে কোনদিন কেও বই কিনে  দেউলিয়া হয় নি। কিন্তু তাই প্রচুর বই না পড়ে নিদিষ্ট সংখ্যাক বই ফলো করতে পারো। তাহলে ভর্তি প্রস্তুতি অনেক ভাল হবে যা  বিশ্ববিদ্যালয় চান্স পেতে অনেকাংশে এগিয়ে রাখবে। তাই পূর্ণ প্রস্তুতি সম্পূর্ণ করতে প্রচুর পড়াশোনা করো যেটা আগামী ঢাবিয়ান হতে সহযোগীতা করবে।অবশেষে ভর্তিচ্ছু সকলের জন্য শুভকামনা রইলো।

Leave A Reply

Your email address will not be published.

সর্বশেষ পাওয়া