দেশ এখন দেউলিয়া ঘোষণার অপেক্ষায় : রিজভী

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, দেশ এক ভয়ঙ্কর পরিস্থিতির দিকে ধাবিত হচ্ছে। প্রতিদিন চারদিকে অশনি সংকেত আর ঘনঘোর অন্ধকার নেমে আসছে। সর্বত্রই অস্বস্তি-অস্থিরতা। ক্ষমতাসীনদের বিশৃঙ্খলা ও অপকীর্তির শেষ নেই। নিশিরাতের অবৈধ সরকার পরিকল্পিতভাবে লাখ লাখ কোটি টাকা লুটপাট করে দেশের অর্থনীতিকে ধ্বংস করে দিয়েছে। ব্যাংকগুলো খালি হয়ে গেছে। রিজার্ভ তলানিতে ঠেকেছে। গত ১৩ বছরে বেপরোয়া দুর্নীতিযজ্ঞের কারণে দেশ এখন দেউলিয়া ঘোষণার অপেক্ষায়।

আজ রোববার নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন। এ সময় রুহুল কবির রিজভী দলের পক্ষ থেকে একদিনের কর্মসূচি ঘোষণা করেন।

তিনি বলেন, বিএনপি চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার ৭৭তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে তার রোগমুক্তি ও আশু সুস্থতা কামনা এবং দেশব্যাপী চলমান গণতান্ত্রিক আন্দোলনে যারা নিহত হয়েছেন তাদের আত্মার মাগফিরাত ও যারা আহত হয়েছেন তাদের সুস্থতা কামনায় আগামী ১৬ আগস্ট দেশব্যাপী জেলা, মহানগর, উপজেলা ও থানা পর্যায়ে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।

সরকারের সমালোচনা করে রিজভী বলেন, কিছুদিন আগেও আওয়ামী লীগের মন্ত্রীরা দেশকে সিঙ্গাপুর-অস্ট্রেলিয়া-কানাডার সঙ্গে তুলনা করে গলাবাজি করতো। দেশকে ঋণের ফাঁদে ডুবিয়ে এখন তারা ফুটো বেলুনের মতো চুপসে গেছে। ২০২১-২২ অর্থবছর শেষে বাংলাদেশের মোট বৈদেশিক ঋণের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৫৯ দশমিক ৫২ বিলিয়ন ডলার। এই বিপুল অঙ্কের ঋণ বাংলাদেশ পরিশোধ করার সামর্থ হারিয়েছে। জ্বালানি, বিদ্যুৎ সঙ্কট, ডলারের বিপরীতে গত তিন মাস ধরে টাকার মানের ক্রমাগত পতন এবং রেকর্ড পরিমাণ বাণিজ্য ঘাটতি-দেশের অর্থনৈতিক গতিপথ নিয়ে জনগণকে উদ্বিগ্ন করে তুলছে। মুদ্রামান হারাবার সঙ্গে সঙ্গে ডলার দুষ্প্রাপ্য হয়ে উঠছে দেশি মার্কেটে। এই লুটেরা সরকার দুর্নীতি রোধ করতে অতটা আগ্রহী নয়, যতটা না আগ্রহী বিভিন্ন বিদেশি সংস্থা ও তহবিল হতে ঋণের মাধ্যমে অর্থ সংগ্রহ করতে। আওয়ামী লীগ এতদিন বলতো দেশ সিঙ্গাপুর হয়ে যাচ্ছে, মূলত দেশে শ্রীলঙ্কার পরিস্থিতি বিরাজমান।

বিএনপির এই নেতা বলেন, আপনারা জানেন, শুধুমাত্র লুটপাট এবং বিদেশে পাচারের জন্য সরকার গত সপ্তাহে মধ্যরাতে জ্বালানি তেলের দাম প্রায় শতকরা ৫০ ভাগ বাড়িয়ে দেওয়ার পর লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে জিনিসপত্রের দাম। জ্বালানি তেলের দাম বাড়ানোর দিনেই বেড়েছে অস্বাভাবিক পরিবহন ভাড়া। এর প্রভাব পড়ছে এখন বাজারে। হাটবাজারে নিত্য প্রয়োজনীয় প্রতিটি দ্রব্যের অগ্নিমূল্যে নাভিশ্বাস উঠছে ক্রেতাদের। পণ্যমূল্য নিম্নবিত্ত, মধ্যবিত্তের ক্রয় ক্ষমতার নাগালের বাইরে চলে গেছে। দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির কারণে মানুষের বেঁচে থাকা উপসংহারহীন পরিস্থিতির দিকে এগিয়ে যাচ্ছে।

তিনি বলেন, চালের দাম গত এক সপ্তাহে ১৫ টাকা পর্যন্ত বেড়ে ১০০ টাকার কাছাকাছি পৌঁছে গেছে। সর্বকালের রেকর্ড ভেঙে ডিমের ডজন ১৫০ টাকা। এত বেশি লাগামহীন দ্রব্যমূল্যর ঊর্ধ্বগতি, শাসকগোষ্ঠীর লুটপাট আর দুর্নীতির পর জীবনযাত্রার খরচ ৫০ শতাংশ থেকে কোন কোন ক্ষেত্রে ১০০ শতাংশ বেড়ে গেছে। এমন পরিস্থিতিতে সাধারণ জনগণের জীবন যাত্রা পরিচালনা করা সম্ভব হচ্ছে না।

বিভিন্ন স্থানে দুর্ভিক্ষের পরিস্থিতি শুরু হয়েছে। ক্ষুধার জ্বালা সহ্য করতে না পেরে নিজের সন্তান বিক্রি করে দিচ্ছে মানুষ। খাগড়াছড়ির পারুল চাকমা তার একমাত্র সন্তানকে মাত্র ১২ হাজার টাকায় বিক্রি করতে বাজারে তুলেছে। পৃথিবীতে মনে হয় এর চেয়ে সস্তা আর কিছুই হতে পারে না।

বিএনপির এই নেতা বলেন, গরীব দেশের ক্ষমতাসীনরা বেহেশতেই আছেন, আসলে তারা নিজেদের চলাফেরায় বেহেশতের সাধ অনুভব করছেন।

রিজভী বলেন, কৃচ্ছতা সাধনের কথা বললেও প্রধানমন্ত্রী তার বাবা-মা জন্ম-মৃত্যু দিবস পালন উপলক্ষে বর্ণাঢ্য জাঁকজমকের সীমারেখা থাকে না। ইতোপূর্বে শত শত কোটি টাকা খরচ করে উৎসব হয়েছে তার পিতার জন্ম শতবার্ষিকীতে। ১৫ আগস্ট তার পিতার শোক পালনের চেয়ে ছোট ব্যবসায়ী থেকে বড় ব্যবসায়ীরা আতঙ্কে থাকেন ছাত্রলীগ-যুবলীগের চাঁদা দাবির হুমকিতে। নোয়াখালীর এক এমপি দুই শতাধিক গরু জবাই করে ভোজসভা করার ঘোষণা দিয়েছেন। আর এইসব উপলক্ষে চাঁদাবাজির মহোৎসবের খবর পত্রিকায় সয়লাব। কিন্তু জনগণ দেখছে-প্রধানমন্ত্রী আর মন্ত্রী, এমপি ও শাসকদলের জন্য ‘বেহেশতের নিয়ম’, আর তাদের সবক দেয় তার উল্টোটা। কারণ অবৈধ ক্ষমতার আমলকি তাদের করতলগত।


আরও পড়ুন